আন্তর্জাতিক

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’, স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা

ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ঘূর্ণিঝড় ফণী’র রেশ কাটতে না কাটতেই এবার ভারতের গুজরাট উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বায়ু। এরইমধ্যে গুজরাটের উপকূল এলাকায় চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে উপকূলবাসীর মধ্যে। প্রায় ৩ লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা চলছে। দক্ষিণ গুজরাটে স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) প্রায় ১২০ কিলোমিটার বেগে ঘূর্ণিঝড়টি পোরবন্দর ও মহউভার এলাকার মধ্যে আছড়ে পড়তে পারে বলে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া অধিদফতর। বলা হয়েছে আগামী ২৪ ঘণ্টায় ‘বায়ু’ আরও শক্তিশালী হবে।

আবহাওয়া অফিস জানায়, বৃহস্পতিবার ঘূর্ণিঝড়টি ১২০ কিলোমিটার বেগে গুজরাটের পোরবন্দর এবং মাহবুবার মাঝামাঝি আছড়ে পড়বে। এর জেরে কচ্ছ দ্বারকা দেবভূমি জুনাগর সোমনাথ আমরেলি ভাবনা কর সহ বিভিন্ন জেলায় ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এদিকে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মাসখানেক আগে ওড়িশায় আছড়ে পড়েছিল ঘূর্ণিঝড় ফণী। এবার গুজরাট উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বায়ু। ইতিমধ্যেই গুজরাটের উপকূল এলাকায় চূড়ান্ত সর্তকতা জারি করা হয়েছে। কচ্ছ থেকে শুরু করে দক্ষিণ গুজরাটের একটি বিস্তীর্ণ এলাকাই উপকূলের মধ্যে পড়ে। সেখানে আগাম সর্তকতা হিসেবে স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

গতকাল থেকেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি বন্ধ রাখছে প্রশাসন। ঘূর্ণিঝড়ে রাস্তা থেকে শুরু করে ফসলের ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। তাছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে বাড়িঘর ভেঙে পড়ার আশঙ্কাও রয়েছে। সকালে জামনগরে পৌঁছেছেন ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্সের কর্মকর্তারা।

এদিকে গুজরাট এবং দমন দিউ মিলিয়ে মোট তিন লাখ মানুষকে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। মোট ৭শ’ টি কেন্দ্রে তাদের সরিয়ে নেওয়া হবে।

জুমবাংলানিউজ/এসএস