জাতীয় বিভাগীয় সংবাদ ময়মনসিংহ

তিন কিশোরের বিজয় আনন্দ কেড়ে নিল বাস

আর কত! কতশত প্রাণ ঘুমিয়ে গেলে থামবে সড়কে লাশের মিছিল? রোববার পুরো দেশ যখন মাতোয়ারা বিজয় উৎসবে, তাতে দুলেছিল কিশোরগঞ্জের তিন কিশোরের হৃদয়ও। মোটরসাইকেলে ঘোরাঘুরি শেষে ওরা বাড়ি ফিরছিল। কিন্তু ওদের আর বাড়ি ফেরা হলো না। ফিরল ওদের নিথর দেহ। বেপরোয়া বাসের চাপায় থেঁতলে যাওয়া রক্তাক্ত ক্ষতবিক্ষত লাশ এলো বাড়িতে।

মায়ের মাতম, বাবার কান্না, স্বজনের আহাজারি আর শোকার্ত মানুষের ঢলে তিন গ্রামে নেমে এলো শোকের ছায়া। রোববার কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার রশিদাবাদ মধ্যপাড়া বেইলি ব্রিজ এলাকায় বাসের চাপায় নিহত হয়েছে এই তিন কিশোর। তারা হলো- শান সৈকত (১৬), জাহিদুল হাসান শুভ (১৪) ও মিলন মিয়া (১৬)। তাদের মধ্যে শান সৈকত কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মারিয়া ইউনিয়নের প্যারাভাঙ্গা গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে, জাহিদুল হাসান শুভ পার্শ্ববর্তী ঝাটাশিরা গ্রামের মৃত বাবুল মিয়ার ছেলে ও মিলন মিয়া পাশের পাঠানকান্দি গ্রামের আবু বাক্কার মিয়ার ছেলে। শান সৈকত ও জাহিদুল হাসান শুভ স্থানীয় ঝাটাশিরা জিএ দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। মিলন মিয়া একটি মোটর গ্যারেজে কাজ করত। বয়স একটু কমবেশি হলেও ওরা ছিল ঘনিষ্ঠ বন্ধু।

স্বজনরা জানান, রোববার দুপুরের দিকে মিলন তার ভগ্নিপতির মোটরসাইকেল নিয়ে শান সৈকত ও শুভকে সঙ্গী করে ঘুরতে বেরিয়েছিল। কিছুক্ষণ ঘোরাঘুরির পর কিশোরগঞ্জ শহরতলির বড়পুল এলাকা থেকে কিশোরগঞ্জ-ভৈরব মহাসড়ক ধরে বাড়ি ফিরছিল তারা। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাড়ির কাছাকাছি কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার রশিদাবাদ মধ্যপাড়া বেইলি ব্রিজ এলাকায় বিপরীত দিক থেকে বেপরোয়া গাতিতে আসা অনন্যা ক্ল্যাসিক পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে মোটরসাইকেলটি দুমড়েমুচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় সৈকত ও মিলন। মুমূর্ষু অবস্থায় শুভকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেও মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

অকালে তিন কিশোরের এমন মর্মান্তিক মৃত্যুতে পাশাপাশি তিন গ্রাম প্যারাভাঙ্গা, ঝাটাশিরা ও পাঠানকান্দিসহ আশপাশের এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তিন গ্রামের নিহত তিন কিশোরের বাড়ি অভিমুখে নামে শোকার্ত মানুষের ঢল। পরিবারগুলোতে চলে মাতম। তাদের লাশ ঘিরে স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে এলাকার পরিবেশ। বিকেলে তিন বন্ধুর বাড়ি গিয়ে দেখা যায় এমন হৃদয়বিদারক দৃশ্য।

স্বজনরা জানান, তিন কিশোর ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিল। একসঙ্গে ঘুরতে বেরিয়ে তিনজনই একই দিন যে পৃথিবীকে বিদায় জানাবে- তা কেন জানত।

জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি