খেলা-ধুলা

তামিম ইকবালদের বিশ্ব একাদশকে হারিয়ে দিল পাকিস্তান

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ঘরে ফেরানোর আনুষ্ঠানিকতাকে স্মরণীয় করে রাখলো পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। তামিম ইকবালদের বিশ্ব একাদশের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজটি ২-১ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে সরফরাজ বাহিনী।

শুক্রবার লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে তামিমদের তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচে ৩৩ রানে পরাজিত করে পাকিস্তান একাদশ।

আর এই জয়ের নায়ক ছিলেন আহমেদ শেহজাদ। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ৮৯ রানের এক দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন তিনি।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শেহজাদের ৮৯ রানের ইনিংসে ২০ ওভারে পাকিস্তান তুলেছিল ৪ উইকেটে ১৮৩।

জবাবে বিশ্ব একাদশ তুলতে পারে ১৫০। তামিম ইকবাল এদিনও পারেননি ভালো কিছু করতে। আউট হয়েছেন ১৪ রানে।

শেষ ম্যাচেও পাকিস্তানকে বড় স্কোরের পথে নিয়ে যায় দলের টপ অর্ডার। ২৫ বলে ২৭ রান করে আগে ফেরেন ফখর জামান। এরপর শেহজাদ ও বাবর আজমের জুটি গড়ে পাকিস্তান ইনিংসের মেরুদণ্ড। ৩৭ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করে শেহজাদ। এরপর টানা তিন ছক্কা মারেন বেন কাটিংকে। অবশেষে ৫৫ বলে ৮৯ রানে থামেন তিনি। অন্যদিকে প্রথম ম্যাচের নায়ক বাবর এদিন করেন ৩১ বলে ৪৮।

এই তিন ব্যাটসম্যানের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে পাকিস্তান গড়ে ১৮৩ রানের সংগ্রহ।

রান তাড়া করতে নেমে তামিম ভালোই শুরু করেছিলেন। এক ওভারে তিনটি বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। তবে পরের ওভারেই বাঁহাতি পেসার উসমান খানের একটু নিচু হওয়া বলে বোল্ড। ১৪ রান করে ফেরেন প্যাভিলিয়নে। তামিমের ওপেনিং পার্টনার হাশিম আমলাও এদিন জ্বলে উঠতে পারেননি।

আগের ম্যাচে অপরাজিত ৭২ রান করা হাশিম এদিন ২১ রান করেই ফেরেন সাজঘরে। সুবিধা করতে পারেননি বাকিরাও। ১০ ওভার শেষ হওয়ার আগেই নেই ৫ উইকেট।

আগের ম্যাচে নাটকীয় জয়ের নায়ক থিসারা পেরেরাও ১৩ বলে ৩২ করে থামেন। মিলার দ্য কিলারও ফেরেন ৩২ রান করে। শেষ পর্যন্ত হতাশ করেন ড্যারেন সামি। ২৩ বলে ২৪ রানে অপারিজত থাকলেও দলকে জয়ী করতে পারেননি তিনি।

ম্যান অব দা ম্যাচ নির্বাচিত হন আহমেদ শেহজাদ।