অর্থনীতি-ব্যবসা জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি স্লাইডার

ডিসেম্বরের মধ্যে পাল্টে যাবে বাংলাদেশের দেড় কোটি নম্বর!

বিজ্ঞান-প্রযুক্ত ডেস্ক : মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড তাদের এয়ারটেল ব্র্যান্ডের ‘০১৬’ দিয়ে শুরু কোনো নম্বর নতুন করে বিক্রি বা প্রতিস্থাপন করতে পারবে না। একই সঙ্গে বর্তমানে তাদের যেসব গ্রাহকের ‘০১৬’ অপারেটর কোডের নম্বর আছে তাও আগামী ৩১ডিসেম্বরের মধ্যে রবির ‘০১৮’ কোডে স্থানান্তর করতে হবে। এ ছাড়া রবি আজিয়াটা লিমিটেড কোনো অবস্থায়ই একীভূত কম্পানি হিসেবে তাদের কোনো পণ্য বা সেবা এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড নামে ব্র্যান্ডিং করতে পারবে না। এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের নামে কোনো বিজ্ঞাপনও প্রচার করা যাবে না।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) কয়েক দিন আগে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ ২২৭তম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এই সিদ্ধান্তের ফলে এয়ারটেল ব্র্যান্ডের ‘০১৬’ দিয়ে শুরু নম্বর ব্যবহারকারী প্রায় দেড় কোটি গ্রাহকের নম্বর পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। বিটিআরসিকে রবি বলছে, কারিগরি দিক থেকে শেষ ১১টি নম্বর অপরিবর্তিত রেখে ‘০১৬’ প্রিফিক্সের গ্রাহকদের ‘০১৮’ প্রিফিক্সে স্থানান্তর অসম্ভব। এটা করতে হলে গ্রাহকদের নতুন নম্বর দিতে হবে এবং তা গ্রাহকদের ওপর অনাকাঙ্ক্ষিত ও বিরূপ প্রভাব ফেলবে। কিন্তু এর পরও বিটিআরসি ‘০১৬’ প্রিফিক্সের নম্বর চালু না রাখার পক্ষেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এ বিষয়ে বিটিআরসির চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক বলেন, ‘এটা নতুন কিছু নয়। রবির সঙ্গে এয়ারটেলের একীভূত হওয়ার শর্ত অনুসারেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া এ বিষয়ে আদালতের রায়ও রয়েছে।’

জানা যায়, রবি আজিয়াটা সম্প্রতি তাদের জন্য বিটিআরসির কাছে ‘০১৬’ প্রিফিক্সের নম্বর ব্যবহারের সুযোগ অব্যাহত রাখার আবেদন করে। আবেদনপত্রে বলা হয়, ‘০১৬’ প্রিফিক্স বরাদ্দের ফলে তাদের গ্রাহকদের নতুন নম্বর পছন্দের স্বাধীনতা বেড়েছে এবং এই ব্র্যান্ডের জন্য বিনিয়োগও হয়েছে। কম্পানি একীভূত হওয়ার শর্ত অনুসারে ‘০১৬’ প্রিফিক্স বরাদ্দ বাতিল করা হলে গ্রাহক হারাতে হবে। আবেদনপত্রে যুক্তি দেখানো হয়, অন্য দুটি মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক এরই মধ্যে দুটি করে প্রিফিক্স বরাদ্দ পেয়েছে। গ্রামীণফোনকে ‘০১৭’সহ ‘০১৩’ ও বাংলালিংককে ‘০১৯’সহ ‘০১৪’ প্রিফিক্সের নম্বর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় বাজারে সাম্যাবস্থা বজায় রাখতে রবির জন্য ‘০১৬’ প্রিফিক্সের নম্বর প্রয়োজন। অন্য এক চিঠিতে রবি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে বিটিআরসির বিলম্ব হতে পারে—এই মতামত জানিয়ে অন্তর্বর্তী সময়ের জন্য জরুরি ভিত্তিতে ‘০১৬০’ ও ‘০১৬৪’ ব্লক থেকে ২০ লাখ নম্বর বরাদ্দের জন্য কমিশনের কাছে আবেদন করে।

রবির আবেদন সম্পর্কে বিটিআরসির এলএল (লিগ্যাল ও লাইসেন্সিং) বিভাগের মতামত হচ্ছে, রবি ও এয়ারটেলের একীভূত হওয়ার শর্ত শিথিল করার কোনো সুযোগ নেই। এই একীভূত হওয়ার বিষয়ে বিটিআরসির অনুমোদনপত্রের ১০ নম্বর শর্ত রবিকে পুরোপুরি পূরণ করতে হবে। এই শর্ত সরকার অনুমোদিত এবং এটি শিথিলের কোনো অবকাশ নেই। এ ছাড়া ২০১৬ সালের ৩১ আগস্ট এ বিষয়ে দেওয়া আদালতের রায়ও রয়েছে।

এদিকে বিটিআরসির তথ্য অনুসারে, গত ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত রবির মোট গ্রাহক চার কোটি ৭৩ লাখ ৫৬ হাজার ২৬১ জন। এর মধ্যে এয়ারটেল ব্র্যান্ডের ‘০১৬’ প্রিফিক্স নম্বরের গ্রাহক এক কোটি ৪২ লাখ ৫৯ হাজার ৫৬৭ জন।

জানা যায়, বিটিআরসির সর্বশেষ এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে গতকাল পর্যন্ত রবির কাছে কোনো চিঠি পৌঁছেনি।

জুমবাংলানিউজ/পিএম