জাতীয়

টানা অনশনে দেড় শতাধিক মাদরাসা শিক্ষক অসুস্থ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে টানা ৫ দিনের অনশনে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকরা। এ পর্যন্ত অসুস্থ হয়েছেন প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষক। এর মধ্যে ৮ জনের অবস্থা গুরুতর। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা। তারা জানান, জাতীয়করণের দাবিতে টানা ৮ দিন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালনের পর সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো আশ্বাস না পাওয়ায় গত মঙ্গলবার থেকে একই স্থানে তীব্র শীতের মধ্যে খোলা আকাশের নিচে আমরণ অনশন পালন করছেন।

তারা আরও জানান, আমরণ অনশনে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ১৪৫ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তার মধ্যে ৮ জন ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি রয়েছেন। অন্যদের অনশন স্থলে প্রাথমিক চিকিৎসা ও শরীরে স্যালাইন দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি ক্বারী রুহুল আমিন চৌধুরী বলেন, ইবতেদায়ি মাদরাসায় শিক্ষকতা করে আমরা মানবেতর জীবন-যাপন করছি। স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা জাতীয়করণের ন্যায্য দাবি প্রতিষ্ঠায় শীতের মধ্যে খোলা আকাশের নিচে আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা জাতীয়করণের দাবি করে আসলেও এ পর্যন্ত বিষয়টি আমলে নেয়া হয়নি। এ কারণে আমরা বাধ্য হয়ে আমরণ আন্দোলনে যুক্ত হয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট আশ্বাস ছাড়া আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। প্রয়োজনে আমরা প্রাণ দেব, তবু আন্দোলন ছেড়ে যাব না। আন্দোলনকারী শিক্ষকরা বলেন, লেখাপড়া শিখে শিক্ষকতার মহান পেশায় এসেছি। বেতন-ভাতা না পাওয়ায় পরিবারের ভরণ-পোষণের খরচ মেটাতে পারছি না। মানবেতর জীবন-যাপন করছি। তাই রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসাও জাতীয়করণ করতে হবে।