অপরাধ/দুর্নীতি জাতীয়

জাতীয় সংসদের ৫০০ ছবি তুলে জেলখানায়

জাতীয় সংসদের ছবি তুলে এখন জেলখানায় মোহাম্মদ রাকিব নামে সেখানকার একজন কর্মচারী। এমনকি তার চাকরিও চলে গেছে। জানা যায়, সংসদের ওই কর্মচারী এক স্থাপত্যবিদ্যার ছাত্রীর জন্য মোবাইলে প্রায় ৫০০ ছবি তোলেন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুক্তরাজ্যে অধ্যয়নরত ওই ছাত্রী এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করে সংসদের ছবি তোলার অনুমতি চান। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা থাকায় স্পিকার অনুমতি দেননি। কিন্তু সংসদের পরিদর্শন শাখায় কর্মরত রাকিব ওই ছাত্রীর কাছ থেকে ১২ হাজার টাকা নেন।

এরপর সংসদের বিভিন্ন স্থাপনার ছবি তুলা শুরু করেন তিনি। ছবি তোলার সময় সেখানে দায়িত্বরত বিশেষ বাহিনী তাকে হাতে নাতে ধরে ফেলেন। এরপর তাকে সংসদের সার্জেন্ট অ্যাট আর্মসের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সংসদের ডেপুটি সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস সিরাজুল ইসলাম জানান, ‘রাকিব বর্তমানে কাস্টোডিতে আছে। তার মোবাইল পরীক্ষা করে বেশ কয়েকটি ছবি পাওয়া গেছে। যা দণ্ডনীয় অপরাধ।’

সংসদের ভিজিট শাখার এক কর্মকর্তা জানান, মাত্র ৬ মাস আগে চাকরি হয়েছে রাকিবের। এরমধ্যেই সে অসাধু উপায়ে অর্থ অর্জনের মতো অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়ে। তাই তার চাকরিও চলে গেছে।

সংসদের কর্মকর্তারা জানান, বিখ্যাত স্থপতি লুইকানের অনবদ্য সৃষ্টি জাতীয় সংসদের নকশা যাতে কেউ নকল করতে না পারেন সেজন্য সংসদের ভেতরে ছবি তোলা নিষেধ।