জাতীয় রাজনীতি

ছাত্রলীগ নেত্রীর স্ট্যাটাসে তোলপাড়

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার ছাত্রলীগ নেত্রী রুমানা তসলিমার একটি স্ট্যাটাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তোলপাড় চলছে।

ওই নেত্রী হঠাৎ করে ফেসবুকে নিজেকে উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন। তার এ ঘোষণার পর থেকে সর্বত্র ব্যাপক অালোচনা শুরু হয়েছে।

বিশেষ করে কক্সবাজারের ইতিহাসে রুমানায় একমাত্র নারী, যিনি সাহসীকতার সঙ্গে নিজ থেকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তাই স্বাভাবিকভাবে তিনি কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতাদের আনুকূল্য পাবেন, এমনটি মনে করছেন অনেকেই।

এদিকে তার এ ঘোষণার পর থেকে উখিয়া ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব নিয়ে শুরু হয়েছে নানা সমীকরণ। পাঠকদের জন্য রুমানা তসলিমার সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

‘জেলা ও উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মানিত নেতাকর্মী, সমর্থক ও শুভাকাঙ্ক্ষীবৃন্দ, আসসলামুআলাইকুম। আমি উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের একজন দায়িত্বশীল সক্রিয় নেত্রী। আমি প্রাণের এই সংগঠনের জন্য আরও বেশি কাজ করার সুযোগ চাই। প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-২০২১ বাস্তবায়ন ও ছাত্রলীগের রাজনীতিকে উখিয়ায় শক্তিশালী ও সুসংগঠিত করতে একজন রাজনীতি সচেতন ও শিক্ষিত নারী হিসেবে নিজেকে উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ঘোষণা করছি।’

তিনি তার স্ট্যাটাসে আরও লিখেন, ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনা সংগঠন ও সরকারের প্রত্যেকটি কাজে নারীদের অগ্রাধিকার দিচ্ছে দেখে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার সাহস করেছি। তাই আর নয় সংকোচ, আর নয় লজ্জা, আর নয় অস্বস্তি, আর নয় পিছিয়ে পড়া, আর নই মিস করা। এবার নারীরা ও এগিয়ে যেতে চায় সামাজিক ও রাজনীতিক প্রতিটি ক্ষেত্রে। এগিয়ে গিয়ে বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনার হাতকে আরও বেশি শক্তিশালী করতে চাই। দেশকে আরও এগিয়ে নিতে চাই। আমি আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা, সুচিন্তিত মতামত ও পরামর্শ কামনা করছি।’

উল্লেখ্য, রুমানা সম্প্রতি ঘোষিত স্নাতক শ্রেণিতে হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছেন। ভর্তি হয়েছেন এলএলবি কোর্সে। চার বোন এক ভাইয়ের মাঝে সবার বড় রুমানা।

এছাড়া মেজো ও সেজো বোনও হিসাব বিজ্ঞানে অনার্স করছেন। ভাই এইচএসসির ফলপ্রার্থী ও ছোট বোন এবার এসএসসি উত্তীর্ণ হয়েছে।

পেশাজীবী বাবার সংসারটা পরিচ্ছন্নভাবে আগলে রেখেছেন মাতৃহারা রুমানা। মায়ের আদরে ছোট ভাই-বোনদের মানুষ করে তুলছেন তিনি। সেই সঙ্গে রাজনৈতিক কার্যক্রমও চালাচ্ছেন সমান তালে।