খেলা-ধুলা

চীনে এই প্রথম জয়ের দেখা পেল বাংলাদেশ হকি দল

এশিয়া কাপের প্রস্তুতি হিসেবে চীন সফররত জাতীয় হকি দল পঞ্চম ম্যাচে এসে জয়ের দেখা পেয়েছে। বাংলাদেশ প্রথম চার ম্যাচের তিনটি হেরে একটি ড্র করতে পেরেছিল গানসু গোবিজ প্রাদেশিক দলের সঙ্গে। তবে মাহবুব হারুনের শিষ্যরা ম্যাচ বাই ম্যাচ উন্নতি করছে- তারই ফল পঞ্চম ম্যাচে এসে পাওয়া জয়। শনিবার লাল-সবজু জার্সিধারীরা জিতেছে ৪-২ গোলে।

কেবল জিতেইনি বাংলাদেশ, ম্যাচেও ছিল পুরোপুরি প্রাধান্য। চীনের গানসু থেকে দলের সহকারী কোচ আলমগীর আলম  জানিয়েছেন, ‘এ দলটি অনেক শক্তিশালী। শনিবারের ম্যাচে আমরা ভালো খেলেই তাদের হারিয়েছি।’

প্রথম কোয়ার্টারেই বাংলাদেশ এগিয়ে যায় আশরাফুল ইসলামের পেনাল্টি কর্নারের গোলে। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে পেনাল্টি কর্নার থেকেই ব্যবধান বাড়ান খোরশেদুর রহমান। ২-০ গোলে এগিয়ে মধ্যবিরতিতে যাওয়া বাংলাদেশ শেষ দুই কোয়ার্টারে করে আরো দুটি গোল। হজমও করেছে ২টি।

বিরতির পর পেনাল্টি কর্নার থেকে গোল করে ব্যবধান ১-২ করে স্বাগতিক দল। তৃতীয় কোয়ার্টারেই মিলনের ফিল্ড গোলে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় হারুনের শিষ্যরা। শেষ কোয়ার্টারে দু’ দলই একটি করে গোল করে। তাতে ম্যাচের ফল দাঁড়ায় ৪-২। বাংলাদেশের হয়ে শেষ গোলটি করেছেন হাসান জুবায়ের নিলয়।

গানসু গোবিজ দলের সঙ্গে সোমবার ষষ্ঠ ম্যাচ খেলবে জিমি-আশরাফুলরা। ১৬ ও ১৮ আগস্ট শেষ দুই ম্যাচের প্রতিপক্ষ বদলাবে বাংলাদেশ হকি দলের। জাতীয় দলের প্রস্তুতি ম্যাচ দেখতে গানসু গেছেন বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক। শুক্রবার ও শনিবারের ম্যাচ দুটি তিনি স্টেডিয়ামে বসে দেখেছেন। শনিবার সন্ধ্যায় আবদুস সাদেক আলোচনায় বসবেন স্থানীয় হকি কর্মকর্তাদের সঙ্গে।

প্রাদেশিক দল হলেও গানসু গোবিজকে অনেক শক্তিশালী উল্লেখ করে বাংলাদেশ দলের সহকারী কোচ আলমগীর আলো জানিয়েছে, ‘হকি ওয়ার্ল্ড লিগে মিশর, ঘানার সঙ্গে আমরা খেলেছি। গানসু গোবিজ দলটি তাদের চেয়েও অনেক ভালো। এই রকম দলের সঙ্গে ম্যাচ খেলতে পারলে অনেক ভালো হবে। আগামীতে এ দলটির সঙ্গে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলা যায় কি না তা নিয়েও আলোচনা করবেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক।’