অন্যরকম খবর

চলতি বছরের সবচেয়ে আশ্চর্য ঘটনা এটাই?

যিনি দেখছেন তিনিই তাজ্জব বনে যাচ্ছেন। সকলেরই একটাই জিজ্ঞাসা, ব্যাপারটা কী? এমনটাও হতে পারে! কিন্তু আছে যে তা তো চোখের সামনেই দেখা যাচ্ছে। অগত্যা বিশ্বাস না করে উপায় নেই।

বিস্মিত নেটিজেনরা বলছেন, সন্দেহ নেই, এটাই এখনও পর্যন্ত বছরের সবথেকে আশ্চর্য ঘটনা। এর থেকে অত্যাশ্চর্য আর কিছু হতে পারে না। আপনি কি এখনো ভাবছেন ব্যাপারটা কী? তাহলে একবার ছবিটির দিকে ফিরে তাকান। হ্যাঁ, সাধারণ একটি কমোডই।

এবার একটু খেয়াল করে দেখুন, তাতে লিপস্টিকের দাগ দেখতে পাচ্ছেন? যেমন-তেমন দাগ নয়। পরিষ্কার দুটি ঠোঁটের ছাপ। যেন কেউ কমোডে চুমু খেয়েছেন।

কিন্তু কমোডে চুমু? এরকম কেউ করতে পারেন? করা ছাড়ুন, ভাবতেও পারেন এরকম কাণ্ড ঘটানোর কথা! আপাতত সেই প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজছে নেটদুনিয়া। এবং কোনো ব্যাখ্যা না পেয়ে সিদ্ধান্ত এই যে, চলতি বছরের এটাই সবথেকে আশ্চর্য ঘটনা।

ঠিক কোথায় এ ঘটনা ঘটেছে তা স্পষ্ট নয়। যিনি ছবিটি টুইটারের আপলোড করেছেন তিনি শিকাগোর বাসিন্দা। অনুমান করা যেতে পারে, সে দেশেরই কোনো টয়লেটে এই অভূতপূর্ব বিষয়টি খুঁজে পেয়েছেন ওই ব্যক্তি। টুইটারে তা পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গেই ভাইরাল হয়ে ওঠে। প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার বার রিটুইট হয়েছে টুইটটি। ১০,০০০ নেটিজেন ফেভরিট মার্ক করেছেন সেটিকে। ভাইরাল হওয়ার বহরে টুইটার মোমেন্টসেও উঠে এসেছে ঘটনাটি।

কী কারণে এমনটা হতে পারে, তা নিয়েই মেতে গিয়েছেন নেটিজেনরা। কমোডে তাও ওরকম জায়গায় কেউ নিজের ঠোঁট ছুঁইয়েছেন এ কথা কোনোভাবেই বিশ্বাস করা যায় না। এদিকে নানা মুনির নানা মত।

তবে সবথেকে গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যাটিও এসেছে। সেটা এরকম- কোনও মহিলা সম্ভবত লিপস্টিক ঠোঁটে দেওয়ার পর হাতের কাছে কোনো কাগজ না পেয়ে টয়লেট পেপারটিই ব্যবহার করেন। যাতে লিপস্টিক ঘেঁটে না যায়, সে কারণে টিস্যুর বদলে টয়লেট পেপারেই কাজ চালিয়েছিলেন। অথবা যে টিস্যুটি ব্যবহার করেছিলেন সেটি কমোডে ফেলে দেন। সেখান থেকেই এই দাগ চলে আসে।