আন্তর্জাতিক

অভিনব কায়দায় ধর্ষণের প্রতিবাদ সংবাদ পাঠিকার

সময়টা খুব একটা বেশি হয়। মাত্র দেড়মিনিট।আর এই দেড়মিনিট-ই আলোড়ন ফেলে দিয়েছে গোটা বিশ্বে।এই দেড়মিনিটেই মেয়েকে নিয়ে সংবাদ পাঠ করেছেন এক পাকিস্তানি সংবাদপাঠিকা। তবে শুধু সংবাদ পাঠ করার জন্যই নয়।  বছর আটের এক নাবালিকাকে ধর্ষণ ও খুনকাণ্ডের প্রতিবাদ জানাতেই এরকম সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তানের সামা টিভির অ্যাঙ্কার কিরণ নাজ। গত বুধবার সামা টিভির বুলেটিনে কিরণ নাজের এই ভাবমূর্তির প্রশংসায় সরব হয়েছে সব মহল।

ঘটনার সূত্রপাত কয়েকদিন আগে পাকিস্তানের কাসুরে একটি ধর্ষণকান্ড নিয়ে। কাসুরের বাসিন্দা বছর আটের এক নাবালিকাকে প্রথমে অপহরণ, তারপর ধর্ষণ করে খুন করা হয়। প্রতিবাদের ঝড় বয়ে যায় ইসলামাবাদে।দোষীদের গ্রেফতারি ও উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয় পাকিস্তানের বিভিন্ন মানবাধিকার ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।সোশ্যাল সাইটেও উপচে পড়ে প্রতিবাদ।কিন্তু প্রতিবাদ জানানোয় কিরণ রাজের এই ভূমিকা, সত্যিই অনভিপ্রেত বলে মনে করছেন অনেকে।

গত বুধবার সামা টিভির তরফ থেকে সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ একটি বুলেটিন সম্প্রচারিত হয়।  বুলেটিনের প্রথম দেড়মিনিট কিরণ নাজ তাঁর ছোট্ট মেয়েকে নিয়ে বসে সংবাদপাঠ করেন।তিনি জানান, আজ তিনি সংবাদপাঠিকা নন, তিনি একজন মা।যে নৃশংশ ভাবে কাসুরের ওই নাবালিকাকে খুন করা হয়েছে তার তীব্র প্রতিবাদ করেন তিনি।

জানা গিয়েছে, কাসুরের মৃত নাবালিকার বাব-মা মক্কায় গিয়েছেন হজ করতে। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনেও কিরণ জানান, একদিকে বাবা-মা গিয়েছেন মেয়ের জন্য প্রার্থনা করতে, অন্যদিকে তাঁদের মেয়েকেই অত্যাচার করে নৃশংসভাবে খুন হতে হল। গোটা ঘটনায় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন কিরণ।

এর আগেও একাধিক ঘটনায় কিরণ নাজের প্রতিবাদী ভাবমূর্তি সামনে এসেছে। তবে ধর্ষণকান্ডের প্রতিবাদে তাঁর ভূমিকার প্রশংসা করেছেন বিভিন্ন দেশের মানুষজন।

জুমবাংলানিউজ/এসএস