খেলা-ধুলা

ক্রিজ ছাড়লেন এক আফসোস নিয়ে..

ব্যাট হাতে ক্রিজে দ্যুতি ছড়ালেন কেএল রাহুল। আর দিনশেষে ক্রিজ ছাড়লেন এক আফসোস নিয়ে। চেন্নাই টেস্টে ভারতের প্রথম ইনিংসে রাহুলকে চতুর্থবার অভিনন্দন জানাতে প্রস্তুত তখন উপস্থিত দর্শকরা। ব্যক্তিগত ৫০, ১০০ ও ১৫০ রান পূর্ণ করে ব্যাট তুলে অভিবাদনের জবাব দেন রাহুল যথারীতি। তবে দোরগোড়ায় এসে খেই হারান কেএল রাহুল। ব্যক্তিগত ১৯৯ রানে আদিল রশিদের ডেলিভারিতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ভারতের এ ওপেনার। তবে ততক্ষণে ম্যাচে নিজেদের অবস্থান শক্ত করে নেয় স্বাগতিকরা। ৩৯১/৪ সংগ্রহ নিয়ে ম্যাচের তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করে ভারত। ১৩৯ বছরের টেস্ট ইতিহাসে ব্যক্তিগত ১৯৯ রানে উইকেট হারানো মাত্র নবম ব্যাটসম্যান কেএল রাহুল। আর এমন ৯ ঘটনাই দেখা গেলো শেষ ৩২ বছরে। প্রথমবার এ আফসোসটা ছিল পাকিস্তানের ওপেনিং ব্যাটসম্যান মুদাসসর নজরের। ১৯৮৪ সালে ফয়সালাবাদ টেস্টে ভারতের বিপক্ষে ১৯৯ রানে আউট হন মুদাসসর নজর। আর দ্বিতীয় ঘটনা ভারতের সাবেক ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের। ১৯৮৬ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কানপুর টেস্টে এমন আফসোস নিয়ে মাঠ ছাড়েন আজহারউদ্দিন।
টেস্টে ভারতের ওপেনিং জুটিতে শতরানের ঘটনা দেখা গেলো ৩১ ইনিংস পর। চেন্নাইয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ১৫২ রানে জুটি গড়েন কেএল রাহুল ও পার্থিব প্যাটেল। তবে গতকাল অল্পতে উইকেট খোয়ান ভারতের ইনফর্ম ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি ও চেতেশ্বর পুজারা। এতে ২৫৬/৩ সংগ্রহ নিয়ে ম্যাচের তৃতীয় দিনের চা বিরতিতে যায় ভারত। এসময় ১৫৪ রানে অপরাজিত ছিলেন কেএল রাহুল। স্বদেশের মাটিতে টেস্টের আগের পাঁচ ইনিংসে রাহুলের সাকুল্যে সংগ্রহ ছিল ১০৪ রান। সর্বোচ্চ ৩৮। রোববার ব্যক্তিগত ৭১ রানে ওপেনার পার্থিব প্যাটেলকে সাজঘরে ফেরান ইংল্যান্ডের পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত অফস্পিনার মঈন আলী। বিরাট কোহলি ১৫ ও পুজারা করেন ১৬ রান। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের শেষ টেস্টে চেন্নাইয়ে প্রথম ইনিংসে মঈন আলীর শতকে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৪৭৭ রান। আট ও ৯ নম্বরে ব্যাট হাতে যথাক্রমে ৬৬* ও ৬০ রানের ইনিংস খেলেন লায়াম ডসন ও আদিল রশিদ। জবাবে ৬০/০ সংগ্রহ নিয়ে শনিবার ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল ইংলিশরা। গতকাল দিনশেষে ৭১ রানে অপরাজিত থাকেন ভারতের নতুন তারকা করুণ নায়ার। তিন ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে নায়ারের এটি প্রথম ফিফটি।
১৯৯ রানে আউট যারা
ব্যাটসম্যান রান বল ৪/৬ প্রতিপক্ষ ভেন্যু সাল
কেএল রাহুল (ভারত) ১৯৯ ৩১১ ১৬/৩ ইংল্যান্ড চেন্নাই ২০১৬
স্টিভেন স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া) ১৯৯ ৩৬১ ২১/২ ও. ইন্ডিজ কিংস্টন ২০১৫
ইয়ান বেল (ইংল্যান্ড) ১৯৯ ৩৩৬ ২০/১ ভারত লর্ডস ২০০৮
ইউনুস খান (পাকিস্তান) ১৯৯ ৩৩৬ ২৬/০ ভারত লাহোর ২০০৬
স্টিভ ওয়াহ (অস্ট্রেলিয়া) ১৯৯ ৩৭৬ ২০/১ ও. ইন্ডিজ ব্রিজটাউন ১৯৯৯
সনৎ জয়াসুরিয়া (শ্রীলঙ্কা) ১৯৯ ২২৬ ২১/২ ভারত কলম্বো ১৯৯৭
ম্যাথিউ এলিয়ট (অস্ট্রেলিয়া) ১৯৯ ৩৫১ ২৬/৩ ইংল্যান্ড লিডস ১৯৯৭
মো. আজহার উদ্দিন (ভারত) ১৯৯ – ১৬/১ শ্রীলঙ্কা কানপুর ১৯৮৬
মুদাসসর নজর (পাকিস্তান) ১৯৯ ৪০৮ ২৪/০ ভারত ফয়সালাবাদ ১৯৮৪

ভিডিও:বিশ্বের একমাত্র শহর, যেখানকার মানুষ জানেনই না টাকা-পয়সা কী জিনিস দেখুন (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment