বিনোদন

ক্রমেই জনপ্রিয় হচ্ছে ইউটিউব থেকে আয়

বিশ্বের যে কয়টি ওয়েবসাইট সবচেয়ে বেশি ভিজিট হয় তার অন্যতম ইউটিউব। ভিডিও আদান-প্রদানের এই ওয়েবসাইটটি বর্তমান ইন্টারনেট জগতের অন্যতম শীর্ষ জনপ্রিয় মাধ্যম। শুধু ভিডিও-আদান প্রদান বা দেখাই নয়  বরং এখানে ভিডিও আপলোডের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনেরও পথ করে দিয়েছে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ।

নিজের চ্যানেল খুলে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে অর্থ উপার্জনের পথটা বর্তমানে দেশের প্রযুক্তিপ্রেমী তরুণ-তরুণীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

ক্রীড়া জগতের নানা তথ্য, খবরাখবর নিয়ে তৈরি করা ভিডিও ইউটিউবে নিজের চ্যানেলে আপলোড করেন মাসুম আহমেদ রনি। কীভাবে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে অর্থ উপার্জন করা যায় সে বিষয়ে কথা হয় রনির সঙ্গে।

জাগো নিউজকে তিনি জানান, ইউটিউব থেকে টাকা আয়ের মূল উৎস হচ্ছে ভিউ। যে ভিডিও যত বেশি ভিউ হবে সেটি তত বেশি অর্থ উপার্জন করবে। মোটামুটিভাবে প্রতি হাজার মনেটাইজ ভিউতে আয় আসে। তবে ভিডিও তৈরির আগে একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে, তা হলো সেটি অবশ্যই মজাদার বা শিক্ষণীয় ও ভালো মানের হতে হবে।

তিনি একটি উদাহরণ দিয়ে বলেন, কেউ একজন তার ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিও আপলোড করার পর সেটি অ্যাড সেন্সরযুক্ত হলে তিনি সেই ভিডিও থেকে অর্থ পাবেন। ধরা যাক ভিডিওটিতে যে অ্যাড আছে সেটা ১ মিনিটের মাথায়। ভিডিওটি ৫ হাজার ব্যক্তি দেখলে এই ভিউ হওয়া থেকেই অ্যাডসেন্স অর্থ দেয়।

অ্যাডসেন্স হলো বিশ্ব বিখ্যাত গুগলের একটি অ্যাডভার্টাইজিং এজেন্সি। পণ্য-সেবার প্রচার ও বিক্রয়ের জন্য অ্যাডসেন্সকে অর্থ প্রদান করে বিভিন্ন কোম্পানি। অ্যাডসেন্স তাদের পণ্য, সেবার বিজ্ঞাপন বিভিন্ন সাইটে প্রচার করে বা ইউটিউবের বিভিন্ন ভিডিওর মধ্যে প্রচার করে। এই প্রচার বাবদ অ্যাডসেন্স কর্তৃপক্ষ তার প্রাপ্য অর্থের একটি অংশ সাইট, ইউটিউব চ্যানেলের মালিক বা ভিডিও আপলোডারকে প্রদান করে।

ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করতে হলে নিজের ভিডিওটি ‘মনেটাইজ’ করতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ইউটিউব মূলত এমন একটা মাধ্যম যেখানে মানুষ নিজেদের ভিডিও শেয়ার করে। এই সাইটের প্রাথমিক উদ্দেশ্য অর্থ আয় নয়। তাই অর্থ আয়ের আশায় কেউ ইউটিউব চ্যানেল খুললে তাকে নিরাশ হতে হবে। ইউটিউব থেকে অর্থ পেতে ধৈর্য ধরতে হবে। প্রথমবার অর্থ পেতে এক বছর বা তারও বেশি সময় লাগতে পারে।

তিনি আরো জানান, সব ভিডিও থেকে আয় করা যায় না। অন্য কোনো সিনেমা বা টিভি চ্যানেল থেকে নেয়া ভিডিও বা অডিও, এমনকি নিজের ভিডিওর মধ্যেও অপরের ভিডিও বা অডিও থাকলে সেটাও মনেটাইজ হবে না। ইচ্ছে করলে ইউটিউব আপনাকে সঙ্গে সঙ্গে ব্লক করে দিতে পারে এবং আপনি ভবিষ্যতে কখনই আর নিজের নামে অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন না।

ভিডিওঃ আরবের মেয়ের যে বেলি ড্যান্স দুনিয়া কাপাচ্ছে

Add Comment

Click here to post a comment