জাতীয় বিভাগীয় সংবাদ রংপুর স্লাইডার

কুড়িগ্রাম-২ আসনে ৩৭ ভোট কেন্দ্রে নেই বিদ্যুৎ সংযোগ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: সব কিছু টিকঠাক থাকলে ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চন। নির্বাচন উপলক্ষে কাজ করছেন সংশ্লিষ্টরা।

কুড়িগ্রাম

ভোটগ্রহণ কেন্দ্রগুলোর অবস্থার নিয়ে দফায় দফায় চিঠি চালাচালি করছেন নিয়মিতভাবে। স্থানীয় প্রশাসন রাস্তা ঘাটের পরিস্থিতি ও ভোট কেন্দ্রে বিদ্যুৎ সংযোগ আছে কিনা তা জানিয়ে সচিত্র প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন নিবার্চন কমিশনের দপ্তরে।

কুড়িগ্রাম-২ আসনে ২০০টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৩৭টি ভোট কেন্দ্রে বিদ্যুতের সংযোগ নেই। এসব কেন্দ্রে বিদ্যুৎ ছাড়া ভোট গণনা ও ফলাফল নিয়ে বিলম্ব হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সে কারণে বিদ্যুৎবিহীন কেন্দ্রগুলোর পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা নেয়ার প্রয়োজন বলে মনে করছেন ভোক্তভোগীরা।

তবে প্রশাসন বলছেন, এবার সোলার প্যানেলের ব্যবস্থা করা রয়েছে ভোট কেন্দ্রেগুলোতে। কুড়িগ্রাম (সদর-ফুলবাড়ী-রাজারহাট) নিয়ে কুড়িগ্রাম -২ আসন। এখানে চার লাখ ৯৩ হাজার ৩৫৩ ভোট রয়েছে। কক্ষ রয়েছে এক হাজার ২৩টি। তার মধ্যে দুই লাখ ৪৯ হাজার ৬০৭ নারী ভোটার রয়েছেন। কুড়িগ্রাম -২ আসনে ৩৭টি ভোট কেন্দ্রে বিদ্যুতের সংযোগ নেই।

এর মধ্যে ফুলবাড়ী উপজেলার ১২টি ভোট কেন্দ্রে বিদ্যুতের সংযোগ নেই। ওই ভোটকেন্দ্রগুলো হচ্ছে, চর গোরুকমন্ডপ সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, বালাতারী সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, মধ্য যতীন্দ্র নারায়ণ সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, সোনাইকাজী সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, কবির মামুদ সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম কুটিচন্দ্রখানা সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, মরানদী সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, ধনিরাম সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম অনন্তপুর সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ অনন্তপুর সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়, ঘোগাকুটি সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক বিগত নিবার্চনে দায়িত্ব পালনকারী একজন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা জানান , ভোট গণনার সময় পর্যাপ্ত আলোর অভাবে চরম বিপাকে পড়তে হয়। ভোট গণনার সময় প্রার্থীদের সমর্থকরা কেন্দ্রের চার পাশে উত্তেজনা থাকে। তখন ব্যালট পেপার ও সরঞ্জাম নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয় ।সে কারনে ভিতরে ও বাহিরে আলো থাকলে প্রিজাইডিং কর্মকর্তা সুবিধা হয়।

নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুসাব্বে আলী মুসা জানান, আমার ইউনিয়নের দুইটি ভোট কেন্দ্রের বিদ্যুতের সংযোগ নেই। সে জন্য বিকল্প ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে ।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হাওলাদার মোহাম্মদ কামরুল হাসান জানান, যে সব ভোট কেন্দ্রে বিদ্যুতের সংযোগ নেই সেগুলোতে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ভোট কেন্দ্রর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে সংযোগ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। এর পরেও যদি সংযোগ না হয় তা হলে পাশ্ববর্তী সংযোগসহ সোলার প্যানেলের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জুমবাংলানিউজ/একেএ