বিনোদন

‘কভি খুশি কভি গম’-এর এই মারাত্মক ভুলটা কেউ কোন দিন খেয়াল করেছিলেন কি!

২০০১-এর ডিসেম্বরে মুক্তি পায় কর্ণ জোহর পরিচালিত সুপারহিট পারিবারিক রোম্যান্টিক ফিল্ম ‘কাভি খুশি কভি গম…’ বা ‘কে৩জি’। কে না ছিলেন এই ছবিতে! অমিতাভ-জয়া, শাহরুখ-কাজল, হৃতিক-করিনা— বলিউডের সাতের দশক থেকে ফালফিলের (সেই সময়ের বিচারে) সেরা জুটিরা এক সঙ্গে একই ছবিতে! পারিবারিক টানাপড়েন, উচ্চবিত্ত, মধ্যবিত্তের দ্বন্দ্ব, আবেগ, প্রেম— সবই ছিল কর্ণের এই ছবিতে। ফলে হল উপচে দর্শক ভিড় করেছিল ছবিটি দেখার জন্য।

৪০ কোটি টাকা বাজেটের এই ছবিটি মোট ১৩৫ কোটি টাকা আয় করেছিল। কিন্তু ‘কে৩জি’র একটা মারাত্মক ভুল প্রায় সবার চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল তখন। সে জন্যই বোধহয় পাঁচটি ফিল্মফেয়ার আর পাঁচটি আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড-সহ মোট ২০টি অ্যাওয়ার্ড জিতেছিল ছবিটি।

সেই গানের দৃশ্যটা মনে আছে! যেটা অমিতাভ বচ্চন তাঁর অন স্ক্রিন বড় ছেলে শাহরুখের (রাহুল) জন্মদিনের পার্টিতে গাইলেন! ‘শাবা শাবা’—মনে পড়েছে! এই গানের দৃশ্যে দেখানো হয়েছে ছোট ছেলে রোহন (এই ভূমিকায় পরে হৃতিককে দেখা যায়) তখনও ছোট। সালটা ১৯৯১। কিন্তু এই গানের পরই জয়া বচ্চনকে উদ্দেশ্যে অমিতাভ গেয়ে ওঠেন ‘এ ক্যায়া বোলতি তু’।

এটা আমরা সকলেই জানি যে, এই গানটি আমির খানের গাওয়া এবং ‘গুলাম’ ছবিতে ব্যবহৃত হয়। ‘গুলাম’ ছবিটি মুক্তি পায় ১৯৯৮-এ। এ বার একটু ভেবে দেখুন, ১৯৯১ সালের ঘটনায় ১৯৯৮ সালে মুক্তি পাওয়া একটি ছবির গান কী করে গাইলেন ‘যশবর্ধন রইচাঁদ’ অমিতাভ বচ্চন!

অবশ্য এ ঘটনায় বলিউড শাহেনশাকে দোষ দেওয়া যায় না! কারণ, ছবির চিত্রনাট্য এবং পরিচালকের নির্দেশ অনুযায়ী তিনি তাঁর কাজটা নিখুঁত ভাবেই করেছিলেন। আর এটাও তো অস্বিকার করা যাবে না যে, এই ভুলটা লক্ষ লক্ষ দর্শক এবং সমালোচকের নজর এড়িয়ে গিয়েছিল সে সময়!-আনন্দবাজার

ভিডিও নিউজ : মাঠে এবং মাঠের বাইরে ক্রিকেট ফান বাংলা ডাবিং; মজা পাবেন গ্যারান্টি (ভিডিও)

জুমবাংলানিউজ/এসওআর



Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.