ক্রিকেট (Cricket) খেলাধুলা

এক নজরে ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মোর্তজা

স্পোর্টস ডেস্ক : নিঃসন্দেহে মাশরাফি ক্রিকেটের এক কিংবদন্তীর নাম৷ কিংবা বলা যেতে পারে একটি মিথ৷ কারণ, মাশরাফি মাঠে থাকলেই নাকি সতীর্থরা উজ্বীবিত বোধ করেন৷ চলুন এক নজর দেখে নিই তাঁর ক্যারিয়ারকে৷

নড়াইল এক্সপ্রেস

নড়াইলের সন্তান মাশরাফি৷ জন্ম ১৯৮৩ সালের ৫ অক্টোবর৷ পেস বোলার হিসেবে ক্যারিয়ারের শুরুতেই সাড়া ফেলেন৷ তাই অনূর্ধ-১৯ দলে থাকতেই বাংলাদেশের তৎকালীন অস্থায়ী ক্যারিবিয়ান বোলিং কোচ অ্যান্ডি রবার্টসের নজর কাড়েন৷ ডাক পড়ে ‘এ’ দলে৷ সেখানে খেলেন মাত্র এক ম্যাচ৷ তারপর? পরেরটা ইতিহাস৷

টেস্ট অভিষেক

জীবনের প্রথম যে প্রথম শ্রেণির ম্যাচটি ‘ম্যাশ’ খেলেছেন, সেটি হলো টেস্ট ম্যাচ৷ ৮ নভেম্বর, ২০০১-এ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে জিম্বাবোয়ের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে তাঁর অভিষেক৷ বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি অমীমাংসিত থাকলেও ওই সুযোগেই ১০৬ রানে ৪ উইকেট নিয়ে নিজের জাত চেনান মাশরাফি৷ স্টুয়ার্ট কার্লাইল তাঁর প্রথম শিকার৷

টেস্ট ক্যারিয়ার

৩৬ টেস্টে ৭৮ উইকেট নিয়েছেন মাশরাফি৷ এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট পাননি কখনো৷ তবে ৪ উইকেট নিয়েছেন চারবার৷ বোলিং গড় ৪১.৫২৷ ইকোনমি ৩.২৪৷ রান করেছেন ৭৯৭৷ সর্বোচ্চ ৭৯৷

ওয়ানডে অভিষেক

সেই সিরিজেই ওয়ানডেতেও অভিষেক হয় মাশরাফির৷ চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে ২০০১ সালের ২৩ নভেম্বর৷ সেখানেও তৃতীয় ওভারেই গ্রান্ট ফ্লাওয়ারের স্টাম্প উড়িয়ে দেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’৷ এরপর অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারের উইকেটও তুলে নেন৷ ম্যাচটি বাংলাদেশ হারলেও মাশরাফি ৮.২ ওভারে ২৬ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট৷

ওয়ানডে ক্যারিয়ার

ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এখনো ইতি টানেননি৷ ২০২ ম্যাচ খেলেছেন এ পর্যন্ত৷ গত ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষের সিরিজই এ পর্যন্ত সবশেষ সিরিজ৷ ওয়ানডেতে মোট উইকেট ২৫৮টি৷ ইকোনমি ৪.৮০৷ ৫ উইকেট নিয়েছেন একবার৷ ৪ উইকেট সাতবার৷ ব্যাট হাতে করেছেন ১৭২৮ রান৷ সর্বোচ্চ অপরাজিত ৫১৷

টি-টোয়েন্টি

৫৪টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন ম্যাশ৷ উইকেট নিয়েছেন ৪২টি৷ রান করেছেন ৩৭৭৷ ম্যাচে ৪ উইকেট নিয়েছেন একবার৷

অধিনায়ক মাশরাফি

বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি৷ ২০০৯ সালে তিনি অধিনায়কের দায়িত্ব পান৷ এ পর্যন্ত ৭০টি ম্যাচ বাংলাদেশ খেলেছে তাঁর অধিনায়কত্বে৷ এর মধ্যে ৪০টি জিতেছে এবং ২৮টি হেরেছে৷ ২টির কোনো ফলাফল হয়নি৷

তথ্যসূত্র ও ছবি : ডয়চে ভেলে

জুমবাংলানিউজ/এইচএম