Exceptional লাইফস্টাইল

এই ৪টি উপায়ে প্রেমিক অসচ্চরিত্রের কিনা বুঝতে পারবেন

বর্তমান সমাজে ভালো ছেলে পাওয়া সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার৷ তবে ভালো ছেলে যে একেবারে নেই তা নয়৷ কিন্তু কয়জন মেয়ের ভাগ্যে সেই ছেলে জুটেছে, তা গুণে বলে দেওয়া যায়৷ বেশিরভাগ সময় তো দেখা যায় অনেকে সর্বদাই ভয়ে কাঁটা হয়ে থাকেন যে, তাঁর প্রেমিক অসচ্চরিত্রের কিনা।

এমন ভয় নির্মূল করার কিন্তু খুব সাধারণ কয়েকটি উপায় রয়েছে৷ একটু মাথা দিয়ে ভাবুন, তাহলে হয়তো আপনিও সম্পর্ক সম্পর্কে সচেতন হতে পারবন৷

১। কিভাবে নিজেকে উপস্থাপন করেছিল সে-

যখন আপনার সঙ্গে তার পরিচয় হয়, সে কি নিজেকে জাহির করেছিল। সোজা কথায় নিজের গাড়ি, টাকা, সম্পত্তির কথা বলেছিল? আর তার সাজপোশাক? সেটা কেমন ছিল? খুব জমকালো জামা বা অ্যাকসেসারিজ পরেছিল? আর সেটা নিয়ে যথেষ্ট দেখনদারি চালাচ্ছিল? তাহলে কিন্তু সতর্ক হন৷ এই ধরনের পুরুষরা সাধারণত মেয়েদের পটাবার তালে থাকে৷ নিজেদের “প্রাইস ট্যাগ” দিয়ে ইমপ্রেশন জমাতে চায়৷

২। কথা ও কাজের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে-

যেভাবে সে আপনার কাছে জাহির করেছে, ব্যক্তিগত জীবনে কী সে তাই? নাকি তার কথা আর কাজের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে? যেমন ধরুন, সে ক্রমাগত বলে যাচ্ছে আপনাকে সে নিজের থেকেও বেশি ভালোবাসে৷ অথচ নিজের পরিবার বা বন্ধুদের সঙ্গে আলাপের কোনও ইচ্ছা প্রকাশ করছে না, তাহলে বুঝবেন তার ভেতর সমস্যা আছে৷ আপনাকে হয়তো সে চিরকালের জন্য কাছে রাখতে চায় না৷ ইচ্ছা ফুরোলেই সরে যাবে৷

৩। দেখা করার পর ফোন করে না-

দেখা করল, কথা বলল, আপনারা সময় কাটালেন, সবই হল৷ মানে ডেট করা যাকে বলে, তার পুরোটাই হল৷ কিন্তু বাড়ি ফেরার পর সে বেমালুম আপনাকে ভুলে গেল৷ সব মেয়েই চায় কেউ তাকে একটু কেয়ার করুক৷ কিন্তু এক্ষেত্রে হয়তো এটা হল না৷ বাড়ি পৌঁছানোর পর সে আর আপনার সঙ্গে যোগাযোগই করল না৷ এমন ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময় হয় সেই পুরুষ আপনাকে নেহাত খেলাচ্ছলে নিচ্ছে৷ শুধু মজার জন্য হয়তো ব্যবহার করছে আপনাকে৷

আরও পড়ুন: নারী পুরুষের মধ্যে ১০টি মানসিক পার্থক্য

৪। অতিরিক্ত সুখ্যাতি করে-

তোমার সব ভালো৷ এটা ভালো, সেটা ভালো৷ শুধু ভালো আর ভালো৷ এমনই কি ক্রমাগত বলে সে? আপনার মধ্যে কোনও ভুল বা খুঁত তাঁর নজরে পড়ে না? এটা কিন্তু ঠিক নয়৷ প্রত্যেক মানুষই খারাপ-ভালো মিশিয়ে তৈরি৷ সে যদি আপনার মধ্যে কোনও খারাপ দিক না দেখতে পায়, তাহলে আগেভাগেই সচেতন হয়ে যাওয়া ভালো৷