জাতীয়

ইসি পুনর্গঠনে সব প্রস্তুতি নিয়েই বঙ্গভবনে যাচ্ছেন খালেদা জিয়া

সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে নির্বাচন কমিশন (ইসি) পুনর্গঠন নিয়ে সংলাপ করতে যাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সংলাপে রাষ্ট্রপতি চাইলে সার্চ কমিটি, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও কমিশনার পদে একাধিক ব্যক্তির নামও প্রস্তাব করতে পারেন তিনি।

উল্লিখিত পদের জন্য গ্রহণযোগ্য সম্ভাব্য (বিভিন্ন পেশা) ব্যক্তিদের নাম দলের সিনিয়র নেতাদের কাছে চেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। ওই তালিকা চূড়ান্ত করাসহ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে শনিবার সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে পারেন তিনি। ১৮ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে যে ১৩ দফা প্রস্তাব দেয়া হয়েছে, সে আলোকেই সার্বিক প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপের অংশ হিসেবে প্রথম দিন ১৮ ডিসেম্বর বঙ্গভবনে বিএনপিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ করতে যেসব নেতাকে খালেদা জিয়া সঙ্গে নিয়ে যাবেন এর একটি তালিকা আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গভবনে পৌঁছে দেয়া হবে। জানা গেছে, ওই তালিকায় স্থায়ী কমিটির সদস্যদের বাইরে একমাত্র দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী থাকতে পারেন। সেক্ষেত্রে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সম্ভাব্য ওই তালিকায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, তরিকুল ইসলাম, লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদের নাম থাকতে পারে।

বুধবার সন্ধ্যায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, শুধু বিএনপি নয়, দেশের প্রায় সবারই দাবি একটি স্বাধীন নির্বাচন কমিশন। সে লক্ষ্যে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপের উদ্যোগ নেয়ায় রাষ্ট্রপতিকে আমরা অভিনন্দন জানাই। আশা করি, তিনি সাধারণ মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে গুরুত্ব দিয়ে একটি স্বাধীন কমিশন পুনর্গঠনে কার্যকর উদ্যোগ নেবেন।

তিনি বলেন, স্বাধীন কমিশন গঠনের জন্যই আমাদের নেত্রী প্রস্তাব দিয়েছেন। কীভাবে একটি স্বাধীন কমিশন গঠন করা যায়, সেই ব্যাপারে আমরা আমাদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতির কাছে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা তুলে ধরব। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সার্চ কমিটি বা নির্বাচন কমিশনারের নাম দেয়ার বিষয়টি হয়তো এখনই আসবে না। যখন এসব বিষয় আলোচনায় আসবে তখন আমরা তা দেখব।

ইসি পুনর্গঠন বিষয়ে বিএনপিকে আমন্ত্রণ জানিয়ে রাষ্ট্রপতি সোমবার বঙ্গভবন থেকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পৌঁছে দেয়া হয়। রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণপত্র পাওয়ার একদিন পর মঙ্গলবার রাতে বিএনপির সিনিয়র কয়েক নেতার সঙ্গে বৈঠক করেন খালেদা জিয়া। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ করতে যাওয়ার আগে খালেদা জিয়া সব ধরনের প্রস্তুতিই নিতে চান। সার্চ কমিটি, প্রধান নির্বাচন কমিশন ও কমিশনারদের বিষয়েও সম্ভাব্য বিভিন্ন পেশার ব্যক্তির নাম সঙ্গে নিয়ে যাবেন। সে অনুযায়ী খালেদা জিয়া সংশ্লিষ্ট নেতাদের কাছে বিভিন্ন পেশার গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের নাম চেয়েছেন। এছাড়াও বৈঠকে বঙ্গভবনে খালেদা জিয়ার সঙ্গে কোন কোন নেতা যাবেন, সে তালিকাও করার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসনকে।

বৈঠকে অংশ নেয়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন বিষয়ে রাষ্ট্রপতি আমাদের সঙ্গে সংলাপ করতে চেয়েছেন। আমরা রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণকে ইতিবাচকভাবেই নিয়েছি। আমরা রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বঙ্গভবনে যাব।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১৮ ডিসেম্বর বঙ্গভবনে যাওয়ার আগে বিএনপি প্রস্তাবিত তালিকা দলীয় ফোরামে আলোচনা করে চূড়ান্ত করা হবে। শনিবার সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করতে পারেন তিনি। এরই মধ্যে ওই তালিকা সংগ্রহে দলের দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই নেতা কাজ করছেন। অতিগোপনীয়তার সঙ্গে এ তালিকা করা হচ্ছে। তবে কোন কোন নেতা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সংলাপে যাবেন, সে তালিকা বুধবার রাতে চূড়ান্ত করা হয়েছে।

দলের একজন ভাইস চেয়ারম্যান জানান, বিএনপি মূলত খালেদা জিয়ার ১৩ দফা প্রস্তাবের ওপরই গুরুত্ব দেবে। তারপরও রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আলোচনাকালে তিনি যদি সার্চ কমিটি, প্রধান নির্বাচন কমিশনার বা কমিশনার পদে কোনো নাম চান, বিএনপি তাতে সাড়া দেবে এবং তাৎক্ষণিক প্রস্তাবিত নাম রাষ্ট্রপতির হাতে তুলে দেবেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আমাদের নেত্রী যে ১৩ দফা প্রস্তাব দিয়েছেন, সে আলোকেই আলোচনা করবেন। -যুগান্তর।

ভিডিও নিউজ : মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তাদের কন্ঠে বাংলা গান (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment