slider আন্তর্জাতিক

ইরান-ইরাক সীমান্তে ভূমিকম্প: মৃতের সংখ্যা ৩৩৫ ছাড়িয়েছে

ইরান-ইরাক সীমান্তে শক্তিশালী ভূমিকম্প ও সৃষ্ট ভূমিধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩৫। আহতের সংখ্যা কয়েক হাজার। এক দাতব্য সংস্থা জানিয়েছে, ৭০ হাজারেরও বেশি মানুষের মানবিক সাহায্য জরুরিহয়ে পড়েছে।

মৃতদের বেশিরভাগই ইরানের পশ্চিমাঞ্চলের কেরমানশাহ প্রদেশের। সেখানে ৪ হাজারেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছে। ভূমিকম্পে আরো বহু মানুষ ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়ে আছেন।

ইরাকে ৭ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ভূমিকম্পের সময় বাগদাদের বেশিভাগ মানুষই রাস্তায় নেমে আসে। স্থানীয়রা জানিয়েছে, ভূমিকম্পের সময় বাগদাদের মসজিদগুলোতে আজান হচ্ছিলো।

বাগদাদের তিন সন্তানের মা মাজেদা আমির সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলছিলেন, ‘আমি আমার সন্তানদের নিয়ে রাতের খাবার শেষ করে বসেছিলাম। হঠাৎ করেই দেখি ভবনে দুলুনি শুরু করেছে। আমি প্রথমে ভেবেছিলাম আশেপাশে কোথাও বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তবে আশেপাশের সবাই ভূমিকম্প বলে চিৎকার করতে থাকে।’

ইরানের বার্তা সংস্থা ইরনা বলছে, শুধুমাত্র ইরানেই ৩৯৫০ জন মানুষ হতাহত হয়েছে। এদের বেশিরভাগই ইরানের সীমান্তবর্তী শহর সারপুল-ই-জাহেবের নাগরিক বলে জানা গেছে। ইরাক সীমান্তের ১৫ কিলোমিটারের কাছেই শহরটির অবস্থান।

রিখটার স্কেলে এ ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৩। মার্কিন ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, ইরাকের কুর্দিস্তানের হালাবজার ৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে স্থানীয় সময় রাত ৯টা ২০ মিনিটের দিকে এ ভূমিকম্প আঘাত হানে। এ সময় বেশির ভাগ মানুষই বাড়িতে অবস্থান করছিল।
ইরানের জরুরি সার্ভিসের প্রধান পির হোসাইন কলিভান্ড জানান, ভূমিধসের কারণে রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেক এলাকা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় তাদের পক্ষে উদ্ধার দল পাঠানো কঠিন হয়ে পড়েছে।

সোমবার সকালে ইরান জানায়, প্রাকৃতিক এই দুর্যোগে প্রাথমিকভাবে ৩৩০ জনের বেশি লোকের প্রাণহানি ঘটেছে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, ভূমিকম্প কবলিত এলাকায় রেডক্রসের ৩০টি দলকে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ইরাকের কর্মকর্তারা জানান, দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশে সুলাইমানিয়াহ্য় ভূমিকম্পে ছয়জনের মৃত্যু ও প্রায় ১৫০ জন আহত হয়েছে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ভূমিকম্প কবলিত এলাকাগুলোতে জোরেশোরে ত্রাণ ও উদ্ধার তৎপরতা চালানোর জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুররেজা রাহমানি ফাজলিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

ইরানের ভূমিকম্প বিষয়ক কেন্দ্র জানিয়েছে, এ পর্যন্ত ১১৮টি পরাঘাত রেকর্ড করেছে তারা এবং আরো পরাঘাত হবে বলে আশঙ্কা করছে। সূত্র: বিবিসি ও এএফপি