আন্তর্জাতিক

ইকুয়েডরে প্রথম দফার পর ৩৭ বার ভূমিকম্প, বহু হতাহত

ইকুয়েডরে প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে সোমবার রাতে ভূমিকম্পের আঘাতে তিনজনের মৃত্যু ও ৪৭ জন আহত হয়েছে। এতে সমুদ্র উপকূলীয় বিভিন্ন শহরে হোটেল ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি হয়।

রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৫.৭। আজ মঙ্গলবার কর্মকর্তরা একথা জানান। প্রথম দফার ভূমিকম্পের পর এ অঞ্চলে দফায় দফায় আরও ৩৭ বার ভূমিকম্প অনুভূত হয়। ভূমিকম্পে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইস্মারাদাস প্রদেশে সবচেয়ে বেশী ক্ষয়ক্ষতি হয়। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা এসজিআর জানায়, ভূমিকম্পের ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু ও ৪৭ জন আহত হয়। এতে আতঙ্কিত হয়ে কমপক্ষে ৭০০ পরিবার তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে বাইরে চলে যায়।

ভূমিকম্পের ঘটনার পর প্রেসিডেন্ট রাফায়েল কোরেয়া ইস্মারালদাস পরিদর্শনে যান। সেখানে তিনি বলেন, ভূমিকম্পের ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা সকলেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। ইকুয়েডরের বেতার কেন্দ্রের খবরে বলা হয়, ভূমিকম্পের ফলে উপকূলীয় আতাকামেস ও তনসুপা শহরের অনেক হোটেল ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি হয়। জিওফিজিক্যাল ইনস্টিটিউট জানায়, রিখটার স্কেলে এ ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৫.৭। অবশ্য প্রথমে তারা এর মাত্রা ৫.৮ ছিল বলে জানিয়েছিল।

ভূমিকম্পের আঘাতে ইস্মারালদাসের অনেক এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। অবশ্য পরে তা আবারও চালু করা হয়। ভূমিকম্পের ঘটনায় ওই অঞ্চলের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে কবে নাগাদ এসব প্রতিষ্ঠান পুনরায় খুলে দেয়া হবে সে ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি।

উল্লেখ্য, দক্ষিণ আমেরিকার এ দেশে গত এপ্রিল মাসে একটি শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাতে ৬৭৩ জনের প্রাণহানি ঘটে ও ৬ হাজার লোক আহত হয়। দেশটি এখনো ওই ভূমিকম্পের ধকল পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারেনি।

Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.