জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি লিড নিউজ স্লাইডার

আসছে ‘মেধাশ্রম আইন’

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: শারীরিক শ্রম নিয়ে আইন থাকলেও তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশে ‘মেধাশ্রম’ ব্যবস্থাপনায় নেই কোনো আইন। তাই বিকাশমান এ খাত বিভিন্ন সময় প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছে। এ প্রেক্ষাপটে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের জন্য ‘মেধাশ্রম আইন’ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

একজন মানুষ মেধা খাটিয়ে প্রোগ্রামিং, গ্রাফিক্সের কাজ বা এনিমেশন করছেন, এটা ইন্টেলেকচুয়াল শ্রম। এটা নিয়ে আলাদা আইন থাকা দরকার।

বাংলাদেশ মেধাশ্রম আইন প্রণয়নে খসড়া তৈরির জন্য সম্প্রতি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (শ্রম) রেজাউল হককে আহ্বায়ক করে ১৩ সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিকে আগামী ছয় মাসের মধ্যে প্রস্তাবিত আইনের একটি খসড়া শ্রম সচিবের কাছে দাখিল করতে হবে।

অতিরিক্ত সচিব (শ্রম) রেজাউল হক জানান, ‘আমাদের জন্য এ ধরনের আইন একেবারে নতুন। তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে যারা কায়িক শ্রম দিয়ে নয় মেধা দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে, তাদের অধিকার রক্ষা করতে হবে। সেজন্যই মেধাশ্রম আইন করা হবে।’

তিনি আরো জানান, ‘আগামী দু-এক সপ্তাহের মধ্যে কমিটির প্রথম সভা আহ্বান করা হচ্ছে। এরপর আমরা মেধাশ্রমের সঙ্গে আর কারা সংশ্লিষ্ট, তাদের খুঁজে বের করে মতামত নেব। আইটি বিশেষজ্ঞদেরও পরামর্শ নেব। আমরা কাজটা শুরু করতে চাই।’

‘আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমরা যদি নতুন আইন না করি, তাহলে বিদেশি বিনিয়োগ আনা মুশকিল হবে ‘ বলে জানিয়েছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে রেজাউল হক জানান, ‘কায়িক শ্রমের ক্ষেত্রে শ্রমঘণ্টা, মজুরি, ছুটিসহ অন্যান্য যে বিষয়গুলো রয়েছে, সেগুলো মেধাশ্রমের প্রেক্ষাপটে কী হবে, তা নতুন আইনে তুলে ধরা হবে।’

জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি