খেলা-ধুলা

আশরাফুলের তখন বাস ভাড়া দেওয়ার টাকা ছিলো না

সবাই সফলতার গল্প শুনতে চায়। কিন্তু পেছনের গল্পটা বেশিরভাগ সময় অন্ধকারাচ্ছন্নই থেকে যায়। যেমনটা জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। লাল-সবুজের জার্সিতে সুযোগ পাওয়ার আগে আশরাফুলকে কতোটা সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে উঠে আসতে হয়েছে তা জানিয়েছেন তারই কোচ ওয়াহিদুল গণি।

আশরাফুলের সঙ্গে কোচ গণির আবাহনী ক্লাব থেকে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে হেঁটে যাওয়ার গল্প বহুল প্রচলিত। সেই স্মৃতি রোমন্থন করেই এক দৈনিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দেশসেরা এই কোচ বলেন, ‘আশরাফুল ছাড়াও আশিক, আরিফ, আনোয়ার—এমন অনেকেই আমার সঙ্গে হাঁটতো। সত্যি বলতে, আশরাফুলের তখন বাস ভাড়া দেওয়ার টাকা ছিলো না। এই ছেলেই কিনা প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরির অমন বিশ্বরেকর্ড করলো! আমি ট্রানজিস্টারে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেই টেস্টে ধারাবিবরণী শুনতে শুনতে আবাহনী মাঠে আসছিলাম। আশরাফুলের যখন ৯৬ রান, তখন হাঁটা থামিয়ে দাঁড়িয়ে যাই। চামিন্দা ভাসকে চার মেরে ও সেঞ্চুরি করে। সত্যি, সেটি ছিলো অনেক বড় ভালো লাগার জায়গা।’

সবই ঠিক ছিলো। কিন্তু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ম্যাচ পাতানোর পর সবকিছুই এলোমেলো হয়ে যায়। প্রিয় ছাত্রের এমন পরিণতি হতাশ করে তাকে। সবচেয়ে বড় ব্যাপার, আশরাফুল কোচের সঙ্গে সবকিছু খোলামেলা বললেও ফিক্সিং কেলেঙ্কারির বিষয়টি এখন পর্যন্ত চেপে রেখেছেন।

এ প্রসঙ্গে ওয়াহিদুল গণি বলেছেন, ‘বিশ্বাস করুন, আশরাফুলের মতো ভালো ছেলে হয় না। ও যে কিভাবে এর সঙ্গে জড়িয়ে গেল, ভাবতেই পারি না। আমার বিশ্বাস, ও ফাঁদের মধ্যে পড়ে গেছে। আমার সঙ্গে সব বিষয় নিয়ে ও কথা বলে। কেন যে এটি নিয়ে কথা বলল না!’

ওয়াহিদুল গণির ‘অঙ্কুর’ ক্রিকেট একাডেমির হাত ধরেই উঠে আসা আশরাফুলের। একই জায়গা থেকে এসেছেন আরেক ওপেনার শাহরিয়ার নাফীস। এখনও চলছে ক্রিকেট শেখাবার এই প্রতিষ্ঠান। নতুন সব প্রতিভা খুঁজে ফিরছেন ওয়াহিদুল গণি ।

Advertisements