অর্থনীতি-ব্যবসা আন্তর্জাতিক

আমেরিকার গ্রিনকার্ড, আইটি পেশাদাররাই লাভবান

[better-ads type='banner' banner='1187323' ]

বিজনেস ডেস্ক : গ্রিন কার্ড প্রদানের ক্ষেত্রে দেশপ্রতি ৭ শতাংশ নির্ধারিত সীমা প্রত্যাহার করে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল এ-সংক্রান্ত একটি বিল পাস করেছেন মার্কিন আইনপ্রণেতারা। যুক্তরাষ্ট্রের এ পদক্ষেপের ফলে হাজার হাজার উচ্চদক্ষ ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি (আইটি) পেশাদার লাভবান হবেন। খবর বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।

গ্রিন কার্ডধারীরা যুক্তরাষ্ট্রে আইনগতভাবে স্থায়ীভাবে বসবাস ও কাজ করতে পারেন। যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ বিলটি পাস করায় এখন আইনে পরিণত হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। বিলটি পাস হওয়ায় ভারতের মতো দেশগুলো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী বসবাসের জন্য আবেদনকারী প্রতিভাবান পেশাদারদের বিরক্তিকর অপেক্ষার সময় উল্লেখযোগ্যভাবে কমে আসবে।

বতর্মান মার্কিন অভিবাসন ব্যবস্থার দেশপ্রতি ৭ শতাংশ গ্রিন কার্ডের নির্ধারিত সীমায় ভারতের আইটি পেশাদারদের সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হতে হয়। ভারতীয় আইটি পেশাদাররা মূলত এইচ-ওয়ানবি কর্মভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। তাদের অনেককেই একটি গ্রিন কার্ডের জন্য ১০ বছরেরও বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়।

মার্কিন কংগ্রেশনাল রিসার্চ সার্ভিসের (সিআরএস) তথ্য অনুসারে, বিলটির মাধ্যমে এক বছরে পরিবারভিত্তিক অভিবাসন ভিসার ক্ষেত্রে গ্রিন কার্ডের দেশপ্রতি সীমা ৭ থেকে বাড়িয়ে মোট ১৫ শতাংশ করা হয়েছে এবং কর্মসংস্থানভিত্তিক অভিবাসন ভিসার ৭ শতাংশ সীমা বাতিল করা হয়েছে।

জুমবাংলানিউজ/পিএম