ফেসবুক বিনোদন

আপনার দেখা, আল্লু অর্জুনের বেস্ট সীন কোনটি?

জুমবাংলা ডেস্ক: দক্ষিণ ভারতের জনপ্রিয় অভিনেতা আল্লু অর্জুন। তিনি ভারতীয় তেলেগু ভাষী চলচ্চিত্রের একজন শক্তিমান অভিনেতা হিসেবে ইতোমধ্যে নিজের জায়গা দখল করে নিয়েছেন। জনপ্রিয় এই অভিনেতা ‘পারাগু’ ও ‘ভিদাম’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি দুইটি ফিল্মফেয়ার সেরা তেলেগু অভিনেতা পুরষ্কার এবং আরিয়া ও পারাগু এর জন্য দুইটি নন্দী বিশেষ জ্যুরি পুরষ্কার পেয়েছেন।

তিনি গান্ত্রোত্রী চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সিনেমা এ্যাওয়ার্ডের সেরা নবাগত পুরষ্কার জিতে নেন। আজকে জুমবাংলার পাঠকদের জন্য রয়েছে এই অভিনেতার রেইস গুমরার মুভির কিছু অ্যাকশন সীন নিয়ে ছো্ট্ট একটি আয়োজন। এই মুভির কোন কোন সীন ভক্তদের হৃদয় স্পর্শ করেছে আসুন ভক্তদের কাছ থেকেই জেনে নেই…

সাউথ ইন্ডিয়ান মুভি ফ্রিক ফেসবুক গ্রুফে এক ভক্ত লিখেছেন, রেইস গুমরার আমার সবচেয়ে পছন্দের সীনটা হল ইন্টারভাল ফাইট সীনটা! কি ছিলো না তাতে? লাকীর লাকীসূলভ ক্রোধ, ফেসিয়াল এক্সপ্রেশন, আনলিমিটেড অ্যাকশন, অসাধারণ ডায়ালগ থ্রো আর সাথে ধুমধাড়াক্কা ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক।

আরেকজন লিখেছেন, ‘‘কোথায় শিভা রেড্ডি?”- ডায়ালগটার ঠিক আগে মাটিতে পিলার ধরে টানতে টানতে যখন লাকী এগিয়ে যায়, সে সময় বিজিএম-এ যে বৈচিত্র্যটা থাকে, সেটা আমার অলটাইম ফ্যাভারিট।

আরেকভক্ত লিখেছেন, নমিনেশন জমা দিতে যাওয়া শিভা রেড্ডিকে যখন হাজারো জনতার মাঝখান থেকে লাকী উঠিয়ে নিয়ে আসে, আর গাছের সাথে উল্টা করে ঝুলিয়ে দেয়, ঐ সীনটাতো একেবারেই লা জাওয়াব! আর একেকটা ডায়ালগ কি ছিলো মাইরি।

আরেকজন লিখেছেন, এখন নিজের পরিচয় দিয়ে কিংবা আমার পরিচয় জানতে চেয়ে কোনো রেইস শুরু করিস না। কারণ আমি কোনো সাধারণ রেসার নই, আমি “রেইস গুররাম” (রেসের ঘোড়া)। হিন্দী ডাব-এ ডায়ালগটা একটু চেঞ্জ করে দেওয়া হয়েছে, ওইটাও দারুণ।

অন্যদিকে আরেক ভক্ত আবেগ আপ্লুত হয়ে লিখেছেন, আরে আমি মাড্ডালা শিভা রেড্ডি। মাড্ডালা শিভা রেড্ডি, নাইস নেম! নাইস মিটিং ইউ মিস্টার মাড্ডালা শিভা রেড্ডি! আমি আল্লু লাক্সমান প্রাসাদ, কিন্তু এই নামটা শুনলেই আমার মাথা নষ্ট হয়ে যায়। কল মি লাকী, যাস্ট লাককী।

খুবই স্বল্প সময়ের একটা সীন। আর এর পুরোটা জুড়েই আল্লু আর্জুন অন স্ট্রাইক! কি অভিনয়, কি অ্যাটিচ্যুড, কি অসাধারণ ডায়ালগ থ্রো আর পাওয়ার প্যাকড অ্যাকশন সব মিলিয়ে এই সাড়ে ৭ মিনিটই পুরো মুভির পয়সা উসুল করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট, আর বাকীগুলা তো বোনাস! সত্যি বলতে ভাইয়ের প্রতি যেভাবে ভালোবাসাটা এখানে ফুটে উঠেছে, বলতেই হবে আর কোনো মুভিতেই এমনটা দেখিনি।

এজন্য রেইস গুররাম একটাই, One Piece & Masterpiece! এই একটা সীনই যে কাউকে আল্লু আর্জুনের প্রতি মোহিত করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। আর তাই এটাই আমার জন্য তেলুগু মুভির বেস্ট সীন। এবার বলুন  রেইস গুররামের আপনার দেখা সেরা সীন কোনটা?

তথ্যসূত্র: সাউথ ইন্ডিয়ান মুভি ফ্রিক ফেসবুক গ্রুপ থেকে নেওয়া।