খেলাধুলা

অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন কেভিতোভা!

অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন মহিলা টেনিসের শীর্ষ তারকা পেত্রা কেভিতোভা। তবে ছুরিকাহত কেভিতোভা খেলা থেকে ছিটকে পড়লেন কম পক্ষে তিন মাসের জন্য। মঙ্গলবার চেক প্রজাতন্ত্রের প্রসতেয়ভ শহরে নিজের অ্যাপটমেন্টে হামলার শিকার হন দুবারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন পেতা কেভিতোভা। দৃষ্কৃতকারীর ছুরির আঘাতে তার বাঁ-হাতে অনেকটা কেটে যায়। পরে দীর্ঘ চার ঘণ্টাব্যাপী অস্ত্রোপচার চলে কেভিতোভার চোটগ্রস্ত হাতে। বুধবার এক বিবৃতিতে কেভিতোভা বলেন, আমাকে সহমর্মিতা জানিয়ে অনেক বার্তা পেলাম। সবাইকে ধন্যবাদ। আপনারা হয়তো শুনেছেন, আমার আপার্টমেন্টে এক লোক ছুরি হাতে আমাকে হামলা করেছিল। আত্মরক্ষার্থে আমি হাত তুলে তাকে ফেরাতে গিয়েছিলাম। ছুরির আঘাতে আমার বাঁ-হাতে অনেকগুলো ক্ষত হয়েছে। তবে সৌভাগ্যক্রমে আমি বেঁচে গেছি। মহিলা একক টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের একাদশতম খেলোয়াড় কেভিতোভা ক্যারিয়ারে নিয়েছেন ১৯টি শিরোপার স্বাদ। বাঁ-হাতি খেলোয়াড় পেত্রা কোভিতোভা মর্যাদাকর গ্র্যান্ডস্লাম উইম্বলডন শিরোপা কুড়ান ২০১১ ও ২০১৪ সালে। তবে হামলার ঘটনায় এবারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন আসরে খেলা হচ্ছে না এ টেনিস সুন্দরীর। বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম আসর অস্ট্রেলিয়ার ওপেনের পর্দা উঠবে আগামী ১৬ই জানুয়ারি। গতকাল কেভিতোভার ম্যানেজার কেটি স্পেলম্যান বলেন, কেভিতোভার হাতে ব্যান্ডেজ থাকবে টানা দুই মাস। আর আগামী তিনমাসে বাঁ-হাতে কোনো ওজন উত্তোলন করতে তাকে নিষেধ করেছেন ডাক্তাররা। চেক প্রজাতন্ত্রের পুলিশ জানিয়েছে, হামলাকারীর বয়স আনুমানিক ৩৫ বছর। তবে ঘটনার পরপর পালিয়ে যায় সে।
মঙ্গলবার স্বদেশি তারকা লুসি সাফারোভার সঙ্গে এক চ্যারিটি ম্যাচ খেলার কথা ছিল কেভিতোভার। মহিলা টেনিসের অন্যতম শীর্ষ খেলোয়াড় সাফারোভা বলেন, এটা ভয়ঙ্কর। এমন ঘটনা আমাদের সবাইকেই নাড়িয়ে দিয়েছে। আমাদের যে কারও সঙ্গে এমন ঘটতে পারতো। এটা সত্যিই ভয়ানক। দুষৃ্কতকারীর ছুরির আঘাতে এর আগে ক্যারিয়ার বিনষ্ট হতে দেখা যায় সাবেক যুগোস্লাভ তারকা মনিকা সেলেসের। ১৯৯৩ সালে জার্মানির হামবুর্গ আসরের খেলা শেষে কোর্টের পাশে হামলার শিকার হন ৯ বারের গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপাজয়ী খেলোয়াড় মনিকার সেলেস। কাঁধে ছুরিকাঘাত নিয়ে দীর্ঘদিন কোর্টের বাইরে কাটে তার। পরে সুস্থ হয়ে কোর্টে ফিরলেও আর স্বরূপে দেখা যায়নি সেলেসকে। ১৯৯০ থেকে ক্যারিয়ারের শুরুর তিন বছরে মনিকা সেলেস কুড়ান পৃথক ৮টি গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপা। উন্মুক্ত যুগে টিনএজ কোনো খেলোয়াড়ের সর্বাধিক গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা জয়ের রেকর্ড এটি।

ভিডিও: কোন প্রকার বৈদ্যুতিক সংযোগ ছাড়াই জ্বলছে বাল্ব! বিস্মিত ওয়েব দুনিয়া ইউটিউবের এই ভিডিওতে

Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.