বিনোদন

অর্থ কামানোর ধান্দা করছেন রাবেয়া সুলতানা রুবি!

প্রয়াত চিত্রনায়ক সালমান শাহ হত্যা মামলা নিয়ে আসামি রাবেয়া সুলতানা রুবির সাম্প্রতি প্রকাশিত ভিডিও বার্তায় আবোল তাবোল বলার পেছনে রয়েছে চরম অর্থ সংকট। স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের টাইম টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রুবি বলেছেন তিনি আর নিজের বাড়ি পেনসিলভানিয়ায় ফিরে যাবেন না। সেখানে তার করার কিছুই নেই। প্রয়োজনে নিউ ইয়র্কে থেকেই কাজ খুঁজবেন।

অর্থ সংকটের কথা সরাসরি উল্লেখ না করলেও রুবির কথায় তা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে যে তিনি দারুন অর্থ কষ্টে ভুগছেন। তিনি বলেন, নিউ ইয়র্কে থাকলে আল্লাহ তার একটা ব্যবস্থা করে দেবেন। আগামীকাল থেকেই তিনি কাজ খোঁজা শুরু করবেন।
উপস্থাপকের এক প্রশ্নের জবাবে রুবি বলেন, সুষ্ঠু নিরাপত্তা পেলে তিনি অবশ্যই সালমান শাহ হত্যা মামলা প্রসঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলবেন।

তিনি বলেন, কোনো মামলার আসামি টেলিভিশনে এসে এভাবে কথা বলতে পারেন। কীভাবে তাকে ফাঁসিয়ে ৭ নম্বর আসামি বানানো হয়েছে তা তিনি জানেন না। যে দেশে ২১ বছরেও একটি হত্যার বিচার হয় না, সে দেশে গিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগবো এটাই স্বাভাবিক।
তবে পুরো নিরাপত্তা পেলে তিনি তদন্ত কর্মকর্তাদের সাথে তার জানা সব ঘটনা নিয়ে কথা বলবেন।

সম্প্রতি ফেসবুকে দেয়া ভিডিও বার্তা সম্পর্কে গত শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের বাংলা টেলিভিশনে রুবি বলেন, আমি এতদিন যা জানতাম, তা পরিস্কার নয়। তবে এবার আমার ছেলের কাছ থেকে শুনে সব বিষয় পরিস্কার হয়েছি। আমি তখন বলতে চেয়েছি, হত্যার সম্ভাবনা রয়েছে কিন্তু আমি হত্যা বলেছি। তবে আমি সমস্ত কিছু চিন্তা করেই মনে হচ্ছে এটা হত্যাকাণ্ড।


উপস্থাপকের এক প্রশ্নের জবাবে রুবি বলেন, আসলে আমাকে প্রশ্ন করছেন। আমাকে এত প্রশ্ন করছেন যে কেউ তো সামিরাকে প্রশ্ন করে না। সামিরা কেন সামনে আসে না। এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, সামিরার পরিবারের অনেক ঘটনা ঘটেছে। ওদের অনেক ঘটনা আমি জানি।

গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়ায় থাকা রাবেয়া সুলতানা রুবি ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় সালমান শাহর মৃত্যু নিয়ে কথা বলেন, যা এখন ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। রুবি বলেন, সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই। সালমান শাহকে খুন করা হইছে, আমার হাজব্যান্ড এটা করাইছে আমার ভাইরে দিয়ে। সামিরার ফ্যামিলি করাইছে আমার হাজব্যান্ডকে দিয়ে। আর সব ছিল চাইনিজ মানুষ।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসী বাংলাদেশিরা রাবেয়া সুলতানা রুবি’র উল্টা পাল্টা ভিডিও বার্তা দেখে তাকে প্রথমে অনেকেই পাগল ভেবেছিলেন। যা তিনি নিজেও পরের দিনের একটি ভিডিও বার্তায় উল্লেখ করে বলেছেন যে আমি আগের দিনে যা বলেছি সব মিথ্যা ছিল। কারণ আমার মাথা ঠিক ছিল না। কী বলতে কি বলেছি। আমি একজন মানষিক রোগী। তার প্রমাণ রয়েছে তার কাছে। হাসপাতেলের কাগজ আছে তার কাছে। আবারও তার ছেলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে দিবে।

কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে তিনি নিউ ইয়র্কের একটি বাংলা টেলিভিশনে এসে কীভাবে সাক্ষাৎকার দিলেন তা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে প্রবাসীদের মনে। একজন মানষিক রোগীর সাক্ষাৎকারের কথা মানুষ কীভাবে বিশ্বাস করবে। তবে এ বিষয়ে অনেকেই একমত যে বর্তমানে রুবি অর্থ সংকটে ভুগছে আর এ জন্যই সে অর্থ কামানোর একটা ধান্দা করছেন

Advertisements