জাতীয়

দক্ষ মায়ের যোগ্য কন্যা সায়মা ওয়াজেদ

বাংলাদেশ অটিজম ও নিউরো ডেভেলপমেন্ট ডিসঅর্ডার বিষয়ক জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারপার্সন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুলকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) শুভেচ্ছা দূত হিসেবে নিযুক্ত হওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য ও রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

শুক্রবার তিনি এক বিবৃতিতে রাজশাহীর সাবেক মেয়র লিটন বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন দেশ পরিচালনায় দক্ষতার পরিচয় দিয়ে চলেছেন, তেমনি তারই সুযোগ্য কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল অটিজম ডিসঅর্ডার বিষয়ে দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে বিশ্বখ্যাত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে অভিহিত হয়েছেন। এটা আমাদের গোটা জাতির গর্ব ও অহংকারের বিষয়। এ জন্য আমি রাজশাহীবাসীর পক্ষ থেকে তাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই।

সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুলকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) শুভেচ্ছা দূত করায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্তৃপক্ষকেও তিনি অভিনন্দন জানান। অন্যদিকে বাসসের প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ অটিজম ও নিউরো ডেভেলপমেন্ট ডিসঅর্ডার বিষয়ক জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারপার্সন সায়মা ওয়াজেদ হোসেনকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) শুভেচ্ছা দূত হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সায়মাকে অটিজম ডিসঅর্ডার বিষয়ে বিশ্বখ্যাত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে অভিহিত করে বৃহস্পতিবার ডাব্লিউএইচওর এক বিবৃতিতে তাকে দুই বছরের জন্য সংস্থার শুভেচ্ছা দূত নিয়োগের ঘোষণা দেয়া হয়।

ডাব্লিউএইচওর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বিষয়ক আঞ্চলিক পরিচালক ড. পুনম ক্ষেত্রপাল সিং ডাব্লিউএইচওর সিদ্ধান্ত ঘোষণাকালে বলেন, অটিজম সনাক্তকরণে সায়মা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ক্রমাগত যে শ্রম দিচ্ছেন তা প্রশংসনীয়। তাছাড়া তিনি আক্রান্তদের দুর্ভোগ হ্রাসে ও সচেতনতা তৈরিতে তিনি তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন। গত এপ্রিলে ভুটানে একটি আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে অটিজমসহ অন্যান্য নিউরো ডিসঅর্ডারের ওপর থিম্পু ঘোষণা প্রণয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন সায়মা।