আন্তর্জাতিক

মৃত সন্তান প্রসব করায় ১৯ বছরের তরুণীকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড

মধ্য আমেরিকার এল সালভাদরে মৃত সন্তান প্রসব করার অপরাধে ১৯ বছরের এক তরুণীকে ৩০ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। খবর আনাদলু এজেন্সির।

ইভালিন বেত্রিজ হারনান্দেজ ক্রজ নামের ওই তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃস্ত্বা হয়ে পড়ে। সেকারণে তরুণী গর্ভপাত করার চেষ্টা করায় সন্তান মারা যায় বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।

হাইস্কুলে পড়ুয়া ওই তরুণী গর্ভের সন্তানের প্রতি যত্ন নেয়নি এবং সে বাথরুমে সন্তান প্রসব করে বলে অভিযোগ করা হয়।

২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে ক্রজ মৃত সন্তান প্রসব করে। তখন তার নামে মামলা হয়। সম্প্রতি সেই মামলার রায়ে ক্রজকে শাস্তি দেয়া হয়।

এল সালভাদরে গর্ভপাত বা ভ্রণ হত্যা গুরুতর অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ইতিপূর্বে সেখানে অনেক তরুণী গর্ভপাতের কারণে সাজা ভোগ করে।

২০১৬ সালে ক্রজের বয়স ছিল ১৮ বছর। তখন সে একটি গ্রুপের দ্বারা একাধিকবার ধর্ষণের শিকার হয়। এতে সে গর্ভবতী হয়ে পড়লেও বিষয়টি প্রথমে বুঝতে পারেনি।এল সালভাদরের এক নারী বিচারক এই রায় দেন। ওই বিচারকের বক্তব্য, ক্রজ অন্তঃসত্ত্বাকালীন চিকিৎসা নেয়নি। সে সন্তান চায়নি। এজন্য সে গর্ভপাতের চেষ্টা করে। এতে সন্তান প্রসব হলে সে নবজাতককে বাথরুমে ফেলে দেয়।

দেশটির গর্ভপাত বৈষম্য বিষয় সিটিজেন গ্রুপের পরিচালক মরেনা হেরেনা বলেন, বিচারক কোনো প্রমাণ ছাড়াই ক্রজকে শাস্তি দিয়েছে। পর্যাপ্ত তথ্য প্রমাণও আদালতের কাছে নেই।’