খেলা-ধুলা

হুমকির মুখে শ্রীলঙ্কার সরাসরি বিশ্বকাপ যাত্রা, নিরাপদে বাংলাদেশ

ঘরের মাটিতে জিম্বাবুয়ের কাছে সিরিজ হেরে শ্রীলঙ্কা হারাল ৫টি মূল্যবান রেটিং পয়েন্ট। এতে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের বিশ্বকাপে সরাসরি খেলাও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

গত ২২ জুনও তাদের রেটিং পয়েন্ট ছিল ৯৩। ছয়ে থাকা পাকিস্তানের চেয়ে মাত্র ২ রেটিং পয়েন্ট পেছনে।  শুধু তা-ই নয়, আগে যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সরাসরি বিশ্বকাপ খেলা অসম্ভব মনে হচ্ছিল, তাদেরও এখন আশা জেগে উঠেছে। এখনো কাজটা অনেক কঠিন দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের জন্য। তবে গাণিতিকভাবে তাদের আশা আছে বৈকি।

পরবর্তী দুই সিরিজের ফলাফলের ওপর ৬টি দলের র‍্যাঙ্কিংয়ে অবস্থান বদলে যেতে পারে। কেউ ওপরে উঠবে, কেউ নামবে। কিন্তু বাংলাদেশের গায়ে এর আঁচই লাগবে না। ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশের সাতে থাকা নিশ্চিত। নিশ্চিত ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলাও।

শ্রীলঙ্কা এরপর ওয়ানডে খেলবে ভারতের সঙ্গে। ৫ ওয়ানডের সেই সিরিজ নিজেদের মাটিতে। কিন্তু জিম্বাবুয়ে-ধাক্কার পর লঙ্কানদের আত্মবিশ্বাস এখন তলানিতে। সেই সিরিজে ৫-০ ব্যবধানে ধবলধোলাই হওয়ার শঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

ওদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫ ওয়ানডের সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ডের মাটিতে। এর আগে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে ইংলিশ কন্ডিশনে নিজেদের ঝালিয়ে নেবে।

এই সবগুলো ম্যাচই ৩০ সেপ্টেম্বরের আগে। আইসিসির ওয়ানডে প্রেডিক্টর (ম্যাচের কোন ফলে র‍্যাঙ্কিং কী প্রভাব ফেলবে তার আগাম অনুমান করার ছক) বলছে, শ্রীলঙ্কা যদি ভারতের কাছে ৪টি ম্যাচ হারে, আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি পরবর্তী ৬ ওয়ানডের সবগুলো জেতে, তাহলে র‍্যাঙ্কিংয়ে আবার বড় ধরনের ওলট-পালট হবে। ৮৯ পয়েন্ট নিয়ে আটে উঠে যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৮৭ পয়েন্ট নিয়ে নয়ে নেমে যাবে শ্রীলঙ্কা।

৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আটে থাকা দলগুলোই সরাসরি খেলবে বিশ্বকাপ। ইংল্যান্ডকে ইংলিশ কন্ডিশনে ৫টি ওয়ানডেতে হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য কঠিনতম এক কাজ। ওই সিরিজে তারা একটি ওয়ানডে হারলেও সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার আশা বাদই দিতে হবে। ওয়ানডেতে ইংল্যান্ড যে রকম দল হয়ে উঠছে, তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেই সিরিজ ৫-০-তে জেতা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু ‘প্রায়’ শব্দটা লিখতে হচ্ছে, ক্রিকেটে কত কিছুই না ঘটে!



সর্বশেষ খবর