Advertisements
বিনোদন

হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন দিলীপ কুমার

মুম্বাইয়ের লীলাবতী হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন ভারতের কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমার। ডায়রিয়া ও কিডনিজনিত জটিলতার চিকিৎসা নিতে গত সপ্তাহে এখানে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি।

বুধবার (৯ আগস্ট) হাসপাতালের সামনে হুইলচেয়ারে দেখা গেছে দিলীপ কুমারকে। ৯৪ বছর বয়সী এই তারকার পাশে ছিলেন স্ত্রী সায়রা বানু।

এদিন বিকালে দিলীপ কুমারের টুইটার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে উদ্যোক্তা ফয়সাল ফারুকি জানান, হাসপাতাল থেকে বাড়ি নিয়ে আসতে রওনা দিয়েছেন তিনি। অ্যাকাউন্টটি সায়রা বানুও ব্যবহার করে চিকিৎসক দল এবং ভক্তদের ধন্যবাদ জানান।

পারিবারিক বন্ধু ফয়সাল ফারুকি এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দিলীপ কুমারের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নিয়মিত মেডিক্যাল বুলেটিন জানান।

চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, দিলীপ কুমারের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। তবে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) রাখা প্রয়োজন তাকে। তিনি ছিলেন ডা. নিতিন গোখাল ও ডা. অরুণ শাহ’র তত্ত্বাবধানে। এছাড়া দায়িত্ব পালন করেছেন তার পারিবারিক ফিজিশিয়ান ডা. আর.সি. শর্মা ও ডা. এস. গোখালে ও ডা. এস.ডি. বাপাত।

অসুস্থতার কারণে গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকবার হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে দিলীপ কুমারকে। এর মধ্যে গত বছরই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন দু’বার। এ কারণে ৯৪তম জন্মদিনও তাকে কাটাতে হয়েছে হাসপাতালে।

১৯৪৪ সালে ‘জোয়ার ভাটা’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় দিলীপ কুমারের। ‘আন’, ‘মধুমতি’, ‘দেবদাস’, ‘মুঘল-এ-আজম’, ‘নয়া দৌড়’, ‘গঙ্গা যমুনা’, ‘কর্ম’র মতো ছবিগুলোর সুবাদে ‘ট্র্যাজেডি কিং’ খেতাব পান তিনি। ১৯৯৮ সালে সবশেষ ‘কিলা’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় দেখা গেছে তাকে। ভারত সরকার ১৯৯৪ সালে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার এবং ২০১৫ সালে পদ্মবিভূষণ সম্মানে ভূষিত করে তাকে।

Advertisements