অপরাধ/দুর্নীতি জাতীয়

স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে হোটেলে তারপর তরুণীকে অচেতন করে …

স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে হোটেলে উঠেছিলেন আশরাফ ও মিথিলা। দুপুরের দিকে হোটেল ম্যানেজারকে আশরাফ বলেছিলেন, তিনি বের হচ্ছেন। বিকালে ফিরে স্ত্রীকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাবেন। কিন্তু বিকাল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামলেও ফেরেননি তিনি। পরে হোটেল কর্তৃপক্ষ মিথিলাকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ রাত ১০টায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজে ভর্তি করে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর অবস্থার কোনো উন্নতি না হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেলের ২০৪ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকাল সাড়ে আটটায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে আশরাফ (২৫) এবং মিথিলা (২০) শ্যামলীর তাজিন হোটেলের একটি কক্ষ ভাড়া নেন। তাদের বাড়ী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার চরচণ্ডীপুর গ্রামে বলে উল্লেখ করে হোটেলের বুকিং বইতে। মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক আজিজুল হক জানান, শনিবার রাতে তিনি শ্যামলী এলাকায় কর্তব্যরত অবস্থায় ছিলেন। রাত দশটার দিকে তাজিন হোটেলের ফোন পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছান। হোটলের কক্ষে অচেতন অবস্থায় একটি মেয়েকে দেখতে পান। তার গলায় দড়ির দাগ এবং শরীরের আরো কিছু জায়গায় আঘাতের চিহ্ন ছিল।

তিনি বলেন, মেয়েটি এখনো অচেতন থাকায়   আর কোনো তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না। আর স্বামীর কোনো খোঁজ এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তাই ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা যাচ্ছে না। এদিকে দুপুরে শ্যামলী গিয়ে দেখা যায় তাজিন হোটেলে তালা দেয়া রয়েছে। আশপাশের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ঘটনার পর পরই হোটেল কর্তৃপক্ষ তালা দিয়ে পালিয়ে গেছে। হোটেল সংশ্লিষ্টদের মোবাইল ফোনও বন্ধ আছে। পুলিশের পক্ষ থেকে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।

Advertisements