বিনোদন

সালমানের স্ত্রী সামিরার ব্যাপারে যা বলেছি সব মিথ্যা

গত দুই সপ্তাহ ধরে আমি মানসিক অসুস্থ, যা বলেছি ভিত্তি নেই। আমার অসুস্থতার কারণ হচ্ছে একাকিত্ব। বসে বসে এসবই ভাবতাম। আমি যে অসুস্থ সেটা আমার পরিবারের মানুষরা জানেন। আমি যা কিছু বলেছি তার কোনো ভিত্তি নেই। সবই মিথ্যে।

আজ বুধবার (৯ আগস্ট) বিকেল পৌনে পাঁচটায় ফেসবুক লাইভ এসে এসব কথা বলেন সালমান শাহ হত্যা মামলার ৭ নং আসামি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী নারী রুবি।

তিনি বলেন, সালমান শাহ খুন হতে পারে, আত্মহত্যাও করতে পারে। আমি এর কিছুই জানিনা। কেউ আমাকে গালাগালি করলেও আমার কোনো অসুবিধা নেই। আমি যদি খুনি হই তাহলে আমাকে প্রমাণ করুক যে আমি খুনি।

আমি আমেরিকান সিটিজেন। এখানে এসে আমাকে এত সহজে ধরে নিয়ে যাওয়া যাবে না।
তিনি আরও বলেন, আমি প্রমাণ দিতে পারবো যে আমি মানসিকভাবে অসুস্থ। আমার স্বামীর সঙ্গে কথা বলে আমি বুঝতে পেরেছি আমি সুস্থ নই। আমার বড় ছেলে আমাকে বলেছে একমাস হাসপাতালে থাকতে। আমার স্বামীই একমাত্র এই অবস্থায় আমাকে সাহায্য করতে পারে।

গত সোমবার সকালে তিনি ফেসবুক লাইভে এসে বলেছিলেন, এই খুনের বিষয়ে আমি সব জানি। যেভাবেই হোক আবার যেন মামলা তদন্তের ব্যবস্থা করা হয়। আমি যেমন করেই হোক আদালতে সাক্ষী দেব। রুবি তার ভিডিওতে সালমানের মাকে উদ্দেশ্য করে বারবার বলেছেন, সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই, তাকে খুন করা হইছে। প্লিজ কিছু একটা করেন, কিছু একটা করেন। সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ খুন হইছে। আমার হাসব্যান্ড এইটা করাইছে আমার ভাইরে দিয়ে। আমার হাজব্যান্ড করাইছে, এইটা সামিরার ফ্যামিলি করাইছে আমার হাজব্যান্ডরে দিয়ে, সবাইরে দিয়ে, সব চাইনিজ মানুষ ছিল। সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই, শালমান শাহ খুন হইছে।

এসব কথা বলার দুদিন পরেই সালমান শাহ মৃত্যু জট যখন নতুন করে মোড় নিচ্ছিল তখনই রুবি সবকিছু অস্বীকার করেন। তিনি সামিরাকে নিয়ে বলেন, সামিরার ব্যাপারে যা কিছু বলেছি সবকিছু মিথ্যে কথা। আমার মস্তিষ্ক কাজ করছিলো না। তাই এইসব বলেছি। আমার জন্য কারো কোনো ক্ষতি হোক আমি চাই না।

অথচ দিনের শুরুতেই সামিরাকে প্রকাশ্যে আসার আহবান জানান। সামিরাকে প্রধান সন্দেহভাজন হিসেবে অভিহিত করেন।