slider গাজীপুর ঢাকা বিনোদন বিভাগীয় সংবাদ

সঙ্গীতে রঙ্গিন প্রজাপতি হয়ে উড়তে চায় সুপ্তি (ভিডিও)

রফিক সরকার: পুরো নাম সাবরিনা জাহান সুপ্তি। ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ছে গাজীপুর শাহীন ক্যাডেট একাডেমির মাওনা শাখায়। বর্তমানে পুরো পরিবার নিয়ে শ্রীপুর উপজেলার মাওনার কেওনা পশ্চিম খন্ড এলাকায় বসবাস করছে। প্রচন্ড গান পাগল মেয়ে সুপ্তি। আর গানের পাগলামীটা শুরু মুলত বাবা ডা. মোহাম্মদ সরোয়ার জাহানের কাছেই। বাবা একজন প্রাণী চিকিৎসক ও মাইক্রোবায়োলজিস্ট। সেইফ বায়ো প্রোডাক্টস লি: নামের একটি প্রতিষ্ঠানও রয়েছে তার। তাছাড়া বাবা সরোয়ার জাহান নিজেও এক সময় গান ও নাটক লিখতেন। গান গাইতেন এবং নাটকে অভিনয় করতেন। অন্যদিকে মা জুলেখা বেগম একজন আদর্শ গৃহিনী।

গানের প্রতি মেয়ের পাগলামি দেখে সুপ্তির বয়স যখন চার বছর তখন তাকে স্থানীয় লবলঙ নামের একটি সঙ্গীত একাডেমিতে ভর্তি করে দেওয়া হয়। শুরু হয় সুপ্তির সঙ্গীত শিক্ষার পথচলা। অতি অল্প সময়ে সে লবলঙ একাডেমিতে নিজের যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে শুরু করে। সব ধরণের গানে সুপ্তির দখল থাকলেও ক্যাাসিকাল, নজরুল ও রবীন্দ্র সঙ্গীতের উপর বেশি গুরুত্ব দিতে শুরু করে। পাশাপাশি উচ্চাঙ্গ সঙ্গীদের উপর চলে চর্চা। আর এই উচ্চাঙ্গ সঙ্গীদের জন্য নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত শিক্ষক বাসায় এসে তালিম দেন।

গানের পাশাপাশি লেখাপড়াও সমান মেধাবী সুপ্তি। গত বছর পিএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছেন। ওই বছর ট্যালেন্টপুলে বৃত্তিও পেয়েছে। গানে তার গুরু হিসেবে পেয়েছে ওস্তাদ মুজিবুর রহমান ও মনজুরুল আহসানের মতো গুণী মানুষদের। মঞ্চ মাতিয়েছে আব্দুল জব্বার, কাঙ্গালিনী সুফিয়া, আলম আরা মিনু, চিরকোট ব্যান্ডের পিন্টু ঘোষ, ক্লোজআপ তারকা মুহিন, খুদে গানরাজ তোবা ও প্রান্তিদের মতো সঙ্গীত শিল্পীদের সাথে। মঞ্চে গান গাইতে গাইতেই অহর্নিশ অডিও প্রোডাকশন হাউজের নজর কারে। প্রস্তাব আসে এ্যালবান তৈরির। আর ওই প্রোডাকশন হাউজ থেকেই গত বছর সুপ্তির প্রথম অডিও এ্যালবাম ‘রঙ্গিন প্রজাপতি’ আসে বাজারে। এ্যালবামটিতে সুর ও সংঙ্গীত পরিচালনা করেন শান। গীতিকার ছিলেন তানিয়া সুলতানা । ৭টি মৌলিক গানের সাথে একটি নজরুল ও ভাওয়াইয়া গানের এ্যালবাম ‘রঙ্গিন প্রজাপতি’। আর ওই এ্যালবামটি এ বছর বৈশাখে ইউটিউবে প্রকাশ করা হয়। এ্যালবামের ৩টি গান ইতিমধ্যে বিটিভিতে প্রচারিত হয়েছে। বাকী গানগুলোও রয়েছে প্রচারের অপেক্ষায়।

সুপ্তির বাবা সুরকার, গীতিকার ডা. মোহাম্মদ সরোয়ার জাহান বলেন, ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি মেয়ের আগ্রহ দেখে তাকে পরিবারের পক্ষ থেকে সহযোগীতা করা হয়েছে।

এ্যালবাম সম্পর্কে সাবরিনা জাহান সুপ্তি বলেন, গানগুলো যত্ন নিয়ে করার চেষ্ঠা করেছি। আর ইউটিউবে প্রকাশ করার কারণ হিসেবে জানান, এটা আমার প্রথম এ্যালবাম। তাই ইউটিউবে প্রকাশের মাধ্যমে দর্শক-শ্রোতাদের মতামত নিয়েই ভবিষ্যতের পথে পারি দিতে চাই। সঙ্গীত জগতে উড়তে চাই রঙ্গিন প্রজাপতি হয়ে।

সুরকার শান বলেন, সুপ্তির কণ্ঠের দারুণ মেলডি আছে। খুব সহজেই ও যে কোন গান তুলে ফেলতে পারে। আমি ওর মধ্যে বিরাট প্রতিভা লক্ষ্য করেছি। দেশের সংগীত প্রেমিরা নতুন একটি কন্ঠ পাবে বলেই আমার বিশ্বাস।



সর্বশেষ খবর