বিনোদন

শেষ হাসি কি প্রিয়াঙ্কার বদলে দীপিকাই হাসলেন?

225657deepika_kalerkantho_picদু’জনেই বলিউড জিতে ফেলে ঢুকে পড়েছেন হলি-সাম্রাজ্যে। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এবং দীপিকা পাড়ুকোন।

দর্শকের ভালবাসা জেতার দৌঁড়ে কে এগিয়ে?একজন যখন মিস ওয়ার্ল্ড হয়েছিলেন, অন্যজন তখনও স্কুলে পড়েন! এখন দু’জনেই বলিউড জিতে ফেলে ঢুকে পড়েছেন হলি-সাম্রাজ্যে। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এবং দীপিকা পাড়ুকোন। দর্শকের ভালবাসা জেতার দৌঁড়ে কে এগিয়ে?

প্রশ্নটা আপাতত উঠছে দুটি কারণে। এক, প্রিয়াঙ্কার ‘বেওয়াচ’ এবং দীপিকার ‘ট্রিপ্‌ল এক্স: রিটার্ন অফ জ্যান্ডার কেজ’এর ট্রেলার। প্রিয়াঙ্কা যেখানে প্রায় ব্লিঙ্ক-অ্যান্ড-মিস্‌, দীপিকাকে কিন্তু দেখা গেছে গোটা ট্রেলার জুড়েই। দুই, এক বিখ্যাত অ্যানুয়াল পোল। যেখানে গোটা দুনিয়ার ভোটে গত চারবারের বিজয়ী প্রিয়াঙ্কাকে হারিয়ে ‘সেক্সিয়েস্ট এশিয়ান ওম্যান’ হয়ে গেছেন দীপিকা!

অথচ হলিউডে প্রিয়াঙ্কার পা রাখাটা হয়েছিল বেশ ধুমধাম করে। টিভি সিরিজ ‘কোয়ান্টিকো’র প্রথম সিজনে তাঁর অভিনয় প্রশংসাও কুড়িয়েছিল ভালই। তার আগে পিটবুলের সঙ্গে সিঙ্গল এবং ক্রমাগতই বিভিন্ন অ্যাওয়ার্ড সেরিমনিতে প্রিয়াঙ্কার ঝলমলে উপস্থিতি— সব মিলিয়ে বলিউড বুঝে গিয়েছিল, প্রিয়াঙ্কা এবার ডানা মেলেছেন। কিন্তু উড়ান খানিকটা ঠেকে যায় ‘কোয়ান্টিকো’র দ্বিতীয় সিজনে পৌঁছে। টিআরপি আগের বারের চেয়ে পড়ে যায়। বড় পরদায় ডেবিউয়ের ঠিক আগে যেটা নিঃসন্দেহে ধাক্কা ছিল নায়িকার কাছে।

দীপিকার ‘ট্রিপ্‌ল এক্স…’এ কাজ করার খবরটা বরং খানিক ধোঁয়াশাতেই ঢাকা ছিল। ভিন ডিজেলের সঙ্গে একটা ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন নায়িকা— যেখানে দেখা গিয়েছিল ভিন পিঠ ফিরিয়ে রয়েছেন আর তাঁকে জড়িয়ে ধরেছেন দীপিকা। ব্যাকড্রপে ‘ট্রিপ্‌ল এক্স’এর লোগো। চর্চাটা শুরু হয় তার পরেই। কিন্তু ট্রেলারে পুরো মাত করে দিয়েছেন তিনি! দীপিকার চোখ-জুড়ানো রূপ আর ইংরেজিতে হালকা ভারতীয় অ্যাকসেন্ট তো এখানকার দর্শকের মন কেড়েছেই। উপরি পাওনা, অ্যাকশন দৃশ্যের ঝলক। যাতে করে ধারণা হচ্ছে, তাঁর চরিত্রটা বেশ দাপুটে। আর ‘বেওয়াচ’? ট্রেলারে স্রেফ একবার হেঁটে আসতে দেখা গেছে প্রিয়াঙ্কাকে! যদিও ডোয়েন জনসন আশ্বাস দিয়েছেন, ছবির অনেকটা জুড়েই রয়েছেন নায়িকা। কিন্তু ভক্তদের কি তাতে মন ভরে?

ঘরের মাঠে দুই নায়িকার স্কোরেরও একটা তুল্যমূল্য বিচার করা যেতে পারে। দীপিকা নিজেই কিছুদিন আগে জানিয়েছিলেন, তাঁর আর প্রিয়াঙ্কার জার্নিটা একেবারে আলাদা ছিল। ওঠাপড়াও যে যার মতো করে সামলেছেন। শেষমেশ দু’জনেই প্রমাণ করে দিয়েছেন, তাঁরা যে কোনো চরিত্রের সঙ্গে নিজেদের খাপ খাইয়ে নিতে পারেন। অভিনেতা হিসেবেও একে অপরের প্রশংসায় পঞ্চমুখ দু’জনেই। একসঙ্গে কাজ করেছিলেন ‘বাজিরাও মাস্তানি’তে। পাল্লা দিয়ে দুর্দান্ত অভিনয় করেছিলেন দু’জনে। বন্ধুত্বটা তখন থেকেই নাকি বেশ জোরদার!

কিন্তু বলিউডে প্রিয়াঙ্কার শেষ কাজ ‘জয় গঙ্গাজল’ তেমন নজর কাড়তে পারেনি। তারপর থেকে তিনি হলিউডেই ব্যস্ত! দীপিকা কিন্তু সর্বত্রই ফাটিয়ে খেলছেন। একদিকে ‘ট্রিপ্‌ল এক্স…’এর ট্রেলারে তাঁর পাওয়ার-প্যাক্‌ড অবতার। আবার বলিউডে তিনি রূপের রানি পদ্মাবতী। পারফেকশনিস্ট পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালী পর্যন্ত পদ্মাবতী-রূপে দীপিকাকে দেখে অভিভূত! এই নিয়ে বনশালী-ব্র্যান্ডের সঙ্গে পরপর তিনটি ছবি করাও হয়ে গেল দীপিকার। বনশালী আবার ঘটা করে সকলকে জানিয়েও দিয়েছেন, যে দীপিকা‌ই তাঁর বর্তমান মিউজ।

অন্যদিকে আবার ইরানের অন্যতম শ্রেষ্ঠ পরিচালক মাজিদ মাজিদির নতুন ছবিতে দীপিকার একেবারে অন্য অবতার। ওভারসাইজ্‌ড পোশাক, মলিন রূপে কে চিনবে, তিনিই গ্ল্যামার-কুইন দীপিকা পাড়ুকোন?
নিত্যনতুন রূপে ধরা দিচ্ছেন বলেই হয়তো দুনিয়াজোড়া দর্শকের কাছে তিনিই ‘সেক্সিয়েস্ট এশিয়ান ওম্যান’! সূত্র: এবেলা

আরও পড়ুনঃ শুটিংয়ের আগে যেভাবে মেক আপ করেন সানি লিওন… (ভিডিও সহ)

 

Add Comment

Click here to post a comment