অন্যরকম খবর

শুয়ে-বসে ঘুমিয়ে থাকাটাই চাকরি!

বর্তমানে চাকরি পাওয়াটা অনেকের মতে সোনার হরিণ পাওয়ার মতো। তারপরও যদি চাকরি মেলে তাহলে হাড় ভাঙা খাটুনি খাটতে হয়, কোম্পানির পরিচালক থেকে পিয়ন সবারই।

তবে রাশিয়ার অ্যানা চারদেন্তিসভা নামের এক নারীর চাকরিটা কিন্তু আর দশ জনের মতো নয়। একটি ফার্নিচার কোম্পানিতে অদ্ভুত এক কাজের জন্য নিয়োগ পেয়েছেন তিনি। সোফা টেস্টার হিসেবে নিয়োজিত আছেন অ্যানা। তার কাজ দিনে ১০ ঘণ্টা সোফায় শুয়ে-বসে বা চাইলে ঘুমিয়ে কোম্পানির সোফাগুলো পরীক্ষা করা।

ঘটনাটি রাশিয়ার ইউফা শহরে। গত মাসে রাশিয়ার বিখ্যাত ফার্নিচার কোম্পানি এম জেড ফাইভ সোফা টেস্টার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়। কোম্পানির সকল সোফাই আরামদায়ক কিনা তা অত্যন্ত উন্নত প্রযুক্তির যন্ত্রের সাহায্যে পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু কোম্পানি মানুষের মাধ্যমে পরীক্ষা করতে চাইছিলেন। তবে অ্যানা শুধুমাত্র একাই যে এই পদটির জন্য আবেদন করেছিলেন তা কিন্তু নয়। প্রায় ৫ হাজারের মতো আবেদন পেয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। আবেদনকারীরা সবাই সোফা টেস্টার হিসেবে কাজ করতে চায়।

দিনে ১০ ঘণ্টা বা তারও অধিক সময় নতুন সোফায় শুয়ে-বসে বা ঘুমিয়ে যন্ত্রের চেয়ে দক্ষতার সঙ্গে সোফাটি আসলেই ভোক্তাদের জন্য আরামদায়ক কিনা-একজন মানুষ কতটুকু বলতে পারবেন তা নিয়ে এম জেড ফাইভ কর্তৃপক্ষ প্রথমে একটু দ্বিধায় ছিলেন। কর্তৃপক্ষ ৫ হাজার আবেদন থেকে বেছে ৭ জনের একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা তৈরি করেন। সেখান থেকে মাত্র একজনকে অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দিয়েছেন। নিয়োগ পাওয়া ব্যক্তিই হচ্ছেন অ্যানা চারদেন্তিসভা।

অ্যানার কাজ হচ্ছে দিনে ১০ ঘণ্টা করে বিভিন্ন উপায়ে পরীক্ষা করা যে সোফা গুলো ক্রেতাদের জন্য আরামদায়ক হবে কিনা। আর আরামদায়ক এই কাজের জন্য বেতন কিন্তু নেহায়েত মন্দ নয়। প্রথম তিন মাস অ্যানা পাবেন প্রতি মাসে ৫৬ হাজার রুবল যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮০ হাজার টাকার সমান। আর তিনি যদি আসলেই যন্ত্রের চেয়ে তার কাজ অধিক দক্ষতার সঙ্গে করতে পারেন তাহলে তিন মাস পরে তাকে স্থায়ীভাবে নিয়োগ দেওয়া হবে ও তার বেতনও বাড়ানো হবে।