অপরাধ/দুর্নীতি

যে তিন শর্তে মামলা প্রত্যাহার করতে চায় তরুণী

রাজধানীর বনানীতে জন্মদিনের কথা বলে ডেকে এনে এক তরুণীকে ধর্ষণ করে বাহাউদ্দিন ইভান। এ ঘটনায় ওই তরুণীর করা মামলায় আটক হয়ে বর্তমানে রিমান্ডে রয়েছেন তিনি। এদিকে শর্ত সাপেক্ষে মামলা তুলে নিতে রাজি আছেন বাদী (তরুণী) নিজেই। এক্ষেত্রে তিনটি শর্ত দিয়েছেন তিনি।

প্রথম শর্ত হচ্ছে, ধর্ষণের ভিডিও ক্লিপগুলো ফেরত দিতে হবে। দ্বিতীয়ত, বিভিন্ন সময়ে তরুণীর কাছ থেকে নেয়া প্রায় দুই লাখ টাকা ফেরত দিতে হবে। তৃতীয়ত, ইভান ওই তরুণীকে আর কখনও ডিস্টার্ব করবে না এটা লিখিতভাবে নিশ্চিত করতে হবে।

গতকাল রোববার বিকালে বারিধারা ডিওএইচএসের বাসায় বসে দেশের প্রথম শ্রেণির একটি গণমাধ্যমকে ওই তরুণী এ কথা জানান। এর আগে শনিবার ইভান ও ধর্ষিতা তরুণীকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় ওসির সামনেই আসামি ইভানকে জুতাপেটা করতে উদ্যত হয় ওই তরুণী। এ সময় বাদীকে দেখে নেয়ার হুমকি দেন আসামি। পরে পুলিশের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

২০০৫ সাল থেকেই তিনি মাদকাসক্ত। পরিবার দুইবার তাকে মাদক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করে। কিন্তু সেখান থেকে ফিরে তিনি আবারও মাদকে ঝুঁকে পড়েন। মাদক সেবনের পাশাপাশি তিনি নারী সংক্রান্ত অপকর্মে জড়ান। এ কারণে ২০০৮ সালে অল্প বয়সেই পরিবার তাকে বিয়ে দিলেও বখাটে স্বভাবের পরিবর্তন হয়নি। তার ৫ ও ২ বছর বয়সী দুটি সন্তান রয়েছে। এরপরও তিনি ধর্ষণের মতো ঘটনায় জড়িয়েছেন। ইভান নবম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন। তার কাছে ধর্ষণের একাধিক ভিডিও রয়েছে। এগুলো উদ্ধারের চেষ্টা করছে র‌্যাব।

এদিকে ধর্ষনের শিকার অভিনেত্রী সম্পর্কে জানা গেছে, ২০১১ সালে তার বিয়ে হয়। ২০১৩ সালে তার একটি সন্তান হয়। ২০১৪ সালে স্বামীর সঙ্গে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। এরপর তিনি পরিবারের সঙ্গেই থাকেন।