খেলা-ধুলা

শাস্ত্রীকে নিয়ে যে কারণে এতো আপত্তি সৌরভের!

সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ভারতের কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন সাবেক টিম ডিরেক্টর রবি শাস্ত্রী। কিন্তু এই কোচ নির্বাচন নিয়ে কম নাটক হয়নি। মঙ্গলবার বিকেলে প্রধান কোচ হিসেবে শাস্ত্রীর নাম ঘোষণা করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কোচ নির্বাচক কমিটি। কিন্তু ঘণ্টা পেরোতে না পেরোতেই ভারতের ‘কোচ নাটক’ নতুন মোড় নেয়। বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) পক্ষ থেকে অমিতাভ চৌধুরী জানান, ভারতের নতুন কোচ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি। রবি শাস্ত্রীকে নিয়ে যে খবর ছড়িয়েছে, তার কোনো সত্যতা নেই।

মঙ্গলবার রাতেই সকল নাটকের অবসান ঘটে। শেষ পর্যন্ত সেই শাস্ত্রীর কাঁধেই উঠেছে ধোনি-কোহলিদের দায়িত্ব। বোলিং কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন সাবেক ভারতীয় পেসার জহির খান। এ ছাড়া বিদেশ সফরে দলের ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে কাজ করবেন রাহুল দ্রাবিড়। কোচ নিয়ে এই নাটকের কারণ- শাস্ত্রীর ব্যাপারে উপদেষ্টা কমিটির একমত না হওয়া। এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। জানা গেছে, কোচ হিসেবে শাস্ত্রীকে চাননি উপদেষ্টা কমিটির অন্যতম সদস্য সৌরভ গাঙ্গুলি।

গেল বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর শাস্ত্রীর সঙ্গে বিসিসিআইয়ের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়। এরপর শাস্ত্রীকে বাদ দিয়ে প্রধান কোচ হিসেবে অনিল কুম্বলেকে নিয়োগ দেয় সৌরভ গাঙ্গুলি, শচিন টেন্ডুলকার ও ভিভিএস লক্ষণের সমন্বয়ের গঠিত বিসিসিআইয়ের উপদেষ্টা কমিটি। তারপর থেকেই শাস্ত্রীর সঙ্গে সৌরভের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। কুম্বলেকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার পর সৌরভের সঙ্গে প্রকাশ্যে দ্বন্দ্বেও জড়িয়েছিলেন শাস্ত্রী। তখন থেকেই তাদের মধ্যে তিক্ততা দেখা দেয়।

এরই ধারবাহিকতায় এবারও শাস্ত্রীর ব্যাপারে প্রবল আপত্তি ছিল সৌরভ গাঙ্গুলীর। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, শাস্ত্রীকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার জন্য সৌরভ গাঙ্গুলিকে রীতিমতো রাজি করাতে হয়েছে। বাস্তবতা তুলে ধরে শাস্ত্রীর ব্যাপারে আপত্তি তুলে নেওয়ার জন্য তাকে সবাই অনুরোধ করেন। এজন্যই মূলত কোচ নির্বাচন নিয়ে এত নাটক মঞ্চস্থ হয়েছে। শেষ পর্যন্ত আপত্তি তুলে নিয়ে শাস্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে রাজি হন সাবেক এই ভারতীয় অধিনায়ক।