বিভাগীয় সংবাদ ময়মনসিংহ

শাকিলের মৃত্যুতে শোকের ছায়া ময়মনসিংহে

rপ্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলের আকস্মিক মৃত্যুতে ময়মনসিংহে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সন্তানের অকাল মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন বয়োবৃদ্ধ বাবা-মা।

মঙ্গলবার শাকিলের মৃত্যুরে খবর বাড়িতে পৌঁছলে তার বাবা-মায়ের আহাজারিতে শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। সন্তানের এমন অকাল মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন তারা।

ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে বাকরুদ্ধ ও শোকে কাতর হয়ে পড়েন সত্তরোর্ধ্ব বাবা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা। থেমে থেমে হাউমাউ করে কেঁদে উঠছেন শাকিলের অসুস্থ বাবা। বারবার মূর্চ্ছা যাচ্ছিলেন বয়োবৃদ্ধা মা নুরুন্নাহার খান।

শাকিলের বাবা-মায়ের আহাজারি দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন আত্মীয়-স্বজন, দলীয় লোকজন ও এলাকাবাসী। পুরো শহরজুড়ে শোকের আবহ। প্রিয় মানুষটির এমন আকস্মিক মৃত্যু যেন কেউই মেনে নিতে পারছেন না।

এদিকে শাকিলের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে মঙ্গলবার বিকালে শহরের বাঘমারা রোডের বাসায় ভীড় জমান সর্বস্তরের হাজারো মানুষ। ছুটে যান ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, বিভাগীয় কমিশনার জিএম সালেহ উদ্দিন, ডিআইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা প্রশাসক খলিলুর রহমান, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, হারুন অর রশীদ, পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটুসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ।

মাহবুবুল হক শাকিলের আকস্মিক ও অকাল মৃত্যুতে পরিবারের সকল সদস্যদের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা জানান ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানসহ উপস্থিত নেতৃবৃন্দ।

এদিকে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শাকিলের মরদেহ বুধবার সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নেয়া হবে। সেখানে জানাযা শেষে হেলিকপ্টারযোগে ময়মনসিংহে আনা হবে। বাদ আছর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে জানাযা শেষে মরদেহ শহরের ভাটিকাশর কবরস্থানে দাফনের কথা রয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছেন তারা।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজধানীর গুলশান-২ এর হোটেল সামদাদো থেকে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সামদাদো হোটেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সোমবার রাতে মাহবুবুল হক শাকিল ওই হোটেলের একটি কক্ষে ছিলেন। কিন্তু মঙ্গলবার সকাল থেকে কোনো সাড়া শব্দ না পাওয়ায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হোটেল কর্মকর্তারা কক্ষটিতে গিয়ে শাকিলের মরদেহ দেখতে পান।

উল্লেখ্য, শাকিল অতিরিক্ত সচিব মর্যাদায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ সহকারীর দায়িত্বে পালন করছিলেন। এর আগে তিনি প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিবের দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৬৮ সালে ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন শাকিল। পেশায় আইনজীবী তার বাবা ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। আর মা পেশায় শিক্ষক। শাকিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাস করেন।

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। প্রয়াত শাকিল এবং আইনজীবী স্ত্রীর সংসারে একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে।

Add Comment

Click here to post a comment