খেলা-ধুলা

লন্ডনে স্প্রিন্ট রাজত্ব হারাল জ্যামাইকা

লন্ডনে স্প্রিন্ট রাজত্ব হারাল জ্যামাইকা। উসাইন বোল্টের হারের রেশ না কাটতেই মেয়েদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টের সোনাও হারিয়েছে দ্বীপদেশটি। রিও অলিম্পিকে ১০০ ও ২০০ মিটারের সোনাজয়ী এলাইনা থম্পসন সবাইকে হতবাক করে হয়েছেন পঞ্চম! ২৬ বছর বয়সী মার্কিন তরুণী টোরি বাউয়ি এখন ট্র্যাকের রানি। ১০.৮৫ সেকেন্ড সময়ে নাটকীয়ভাবে লন্ডন বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছেন বাউয়ি। ১০.৮৬ সেকেন্ডে রুপা জেতেন আইভরি কোস্টের টা লোউ। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে দুজন পাল্লা দিয়ে লড়লেও শেষ মুহূর্তের ‘ডাইভ’ সোনা এনে দেয় বাউয়িকে। ১০.৯৬ সেকেন্ডে ব্রোঞ্জ নেদারল্যান্ডসের ডাফিনা শিপার্সের। হট ফেভারিট থম্পসন ১০.৯৮ সেকেন্ডে হয়েছেন পঞ্চম।

ছেলেদের ১০০ মিটারে জাস্টিন গ্যাটলিনের জয়ের পর মেয়েদের স্প্রিন্টেও বাজিমাত যুক্তরাষ্ট্রের। স্প্রিন্টের হারানো সিংহাসন তাহলে লন্ডনে ফিরে পেল তারা? আর জ্যামাইকা হারাল টানা ৯ বছরের রাজ্যপট। এ জন্য নিজেকেই দায়ী করতে পারেন থম্পসন।
বোল্টের চেয়েও শুরুটা বেশি খারাপ ছিল তাঁর। বোল্টের ‘রি-অ্যাকশন টাইম’ যেখানে ছিল ০.১৮৩ সেখানে থম্পসনের ০.২০। মাঝখানে গতি বাড়িয়েও ব্যবধান ঘুচাতে পারেননি তিনি। তাই রিও অলিম্পিকে হারের প্রতিশোধ নিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতলেন বাউয়ি। রিওতে থম্পসনের পেছনে থেকে ১০০ মিটারে রুপা আর ২০০ মিটার স্প্রিন্টে জিতেছিলেন ব্রোঞ্জ। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জেতাটা তাই বিশ্বাস হচ্ছে না বাউয়ির, ‘সত্যিই আমি বিশ্বচ্যাম্পিয়ন? বিশ্বাস হচ্ছে না! মনে হয় কঠোর পরিশ্রমের প্রতিদান পেলাম এত দিনে। এর চেয়ে বেশি খুশি হওয়া যায় না। শেষ মুহূর্তের ডাইভটা এখন আর খারাপ মনে হচ্ছে না! রেখা পার না হওয়া পর্যন্ত হাল ছাড়তে চাইনি আমি। ’

থম্পসন না পারলেও পোল ভল্টে মেয়েদের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন একাতেরিনা স্তেফানিদি হেসেছেন লন্ডনেও। ৪.৯১ মিটার লাফিয়ে সোনা জিতেছেন গ্রিসের এই সোনার মেয়ে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ রেকর্ড ৫.০২ মিটার পেরোনোর তিনবার চেষ্টা করেও অবশ্য পারেননি তিনি। রিও অলিম্পিকে রুপা জেতা যুক্তরাষ্ট্রের সান্ডি মরিস দ্বিতীয় হয়েছেন লন্ডনেও। তিনি পেরিয়েছেন ৪.৭৫ মিটার। সমান ৪.৬৫ মিটার লাফিয়ে যৌথভাবে ব্রোঞ্জ পান ভেনিজুয়েলার রবিয়েলি পিনাদো আর কিউবার ইয়ারিসলে সিলভা। গত পরশু ছেলেদের ম্যারাথনে সোনা জিতেছেন কেনিয়ার জিওফ্রি কিপকোরি কিরুই। আর মেয়েদের ম্যারাথনের সোনা কেনিয়ায় জন্ম নেওয়া বাহরাইনের রোজ কেলিমোরের।