slider ওপার বাংলা ধর্ম বিনোদন শিল্প ও সাহিত্য

রোহিঙ্গাদের জন্য গাইলেন কবীর সুমন, বর্মিদের বর্বরতা নিয়ে যা বললেন…

জুমবাংলা ডেস্ক: আরো একবার গর্জে উঠলো কবীর সুমনের প্রতিবাদী সত্ত্বা, মিয়ানমারে চলতে থাকা রোহিঙ্গাদের জাতিগত নিধনের নিন্দা করে রচনা করলেন নতুন গান।

পশ্চিমবঙ্গের প্রখ্যাত এই সংগীতশিল্পী বৃহস্পতিবার দুপুরে তার ফেইসবুক ফ্যানপেইজ আর সাউন্ডক্লাউডে প্রকাশ করেন ‘রোহিঙ্গা’ শিরোনামের গানটি।

এক সাক্ষাৎকারে কবীর সুমন বলেন, ‘বাংলাদেশ ও কলকাতার অনেক বন্ধুরা আমাকে অনুরোধ করেছিলো এরকম একটা গান লিখতে, সেকথা সত্যি। এরকম বিষয়ের উপর তো আসলে গান করতে খুব কষ্ট হয়। তারপরও করলাম, একটা সামাজিক সচেতনতার যায়গা থেকে। এই গান থেকে মানুষকে যদি কিছুটা ভাবানো যায়…’

এর পরপরই একটু দম নিয়ে নিজের বক্তব্যের প্রতি নিজেই সন্দেহ প্রকাশ করলেন সুমন।

বললেন, ‘আসলে সেটা এখন আর হয় কিনা জানিও না। এখন আর মানুষ, গান-কবিতা-নাটক থেকে কিছু গ্রহণ করে কিনা… সেটা আর আমার খুব একটা মনে হয় না।’

গান কি তবে এখন আর মানুষকে ভাবায় না?

এমন প্রশ্নে কবীর সুমনের উত্তর, ‘দীর্ধদিন ধরেই তো বেঁচে আছি, গান করছি, গান লিখছি, কিন্তু মানুষ তো বদলায়নি। মানুষ যেরকম বর্বর ছিলো সেরকমই তো আছে। নাহলে রোহিঙ্গাদের সাথে যা করছে ওরা, এটা কি মানুষ করতে পারে? তাই গান লিখে মানুষকে শোধরানো যায় না- এটাই মনে হয় এখন অনেক বেশি।’

কবীর সুমনের ‘রোহিঙ্গা’ শীর্ষক গানটির কথা হুবহু তুলে দেওয়া হলো :

বর্মিবাহিনী নেমেছে মাঠে
রোহিঙ্গা জানে কে গলা কাটে
শান্তিপদ্মে কী ভীষণ হুম
রোহিঙ্গা জানে রাত্রি নিঝুম।

মিডিয়া-ছবিতে অস্ত্র হাতে
গেরুয়াধারীরা অনেক রাতে
রোহিঙ্গাদের নিধনে শান্তি
বর্মিবাহিনী নধরকান্তি।

হাজার বছর আরাকানে বাস
রোহিঙ্গাদের থেঁতলানো লাশ
রোহিঙ্গা মেয়ের গর্ভে লাথি
ভ্রূণ হত্যার মসলাপাতি।

এ হলো মানুষ তীর্থফেরা
সবার ওপরে সত্য এরা
কারা রোহিঙ্গা কী যায় আসে
বসছে শকুন শিশুর লাশে।

স্বাগত শকুন তোমারই যোগ্য
আমরা মানুষ পোকার ভোগ্য
উপড়ানো চোখ তোমাকেই দেব
শুনলে এ গান রোহিঙ্গা ভেব।