খেলা-ধুলা

রোনালদোর দাপুটে প্রত্যাবর্তনে দারুণ জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ

সব হতাশা ঝেড়ে ফেলে রোনালদোর দাপুটে প্রত্যাবর্তনে দারুণ জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। বুধবার তারা ৩-০ গোলে হারিয়েছে অ্যাপোয়েলকে।

চার ম্যাচ পর রিয়ালের জার্সিতে আবার মাঠে নামেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। স্প্যানিশ সুপার কাপের প্রথম লেগে লাল কার্ড দেখার পর যে স্প্যানিশ প্রতিযোগিতাগুলোতে আর নামতে পারেননি। তার প্রত্যাবর্তনেই সেই রিয়ালের দেখা মিলল, যে দল সুপার কাপে নাজেহাল করে ছেড়েছিল বার্সেলোনাকে। টানা দুই ম্যাচ জয়হীন থাকা বার্নাব্যুও পেল জয়ের দেখা।
টানা ৭১টি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে গোল করার রেকর্ড নিয়ে নেমেছিল রিয়াল। ঘরের মাঠ বার্নাব্যুতে সে রেকর্ড যে ৭২-এ গিয়ে ঠেকবে, এতে আর বিস্ময়ের কী! আর ১২ মিনিটে সে গোল যে রোনালদোর পা থেকে আসবে সেটার নিশ্চয়তা? চ্যাম্পিয়নস লিগে গত পাঁচ মৌসুম ধরেই প্রথম ম্যাচে গোল করেছেন রোনালদো। সেটা আজ টানা ছয় মৌসুমে পৌঁছাল।
গোলটি এসেছিল রিয়ালের সেই পরিচিত কাউন্টার অ্যাটাক থেকে। প্রথম দশ মিনিটেই দুটো ভালো আক্রমণ করেছিল অ্যাপোয়েল। ১১ মিনিটে ওরকম এক আক্রমণের পর পাল্টা আক্রমণে ওঠে রিয়াল। বাঁ প্রান্তে দুর্দান্ত পায়ের কাজ দেখিয়ে ইসকো বল পাঠান গ্যারেথ বেলের কাছে। বেলের নিখুঁত ক্রসে পা ছুঁয়ে এ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে গোল উৎসবের সূচনা করলেন রোনালদো।

দুই মিনিট পরেই বেলের এমনই এক ক্রসে হেড করে রোনালদো ব্যবধান বাড়িয়ে ফেলেছিলেন প্রায়। কিন্তু এবার আর বল জায়গা মতো যায়নি। প্রথমার্ধে এরপর পুরোটা সময় মাঠ দাপিয়েও ব্যবধান বাড়াতে পারেনি রিয়াল।
দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম মিনিটেই ব্যবধান প্রায় বাড়িয়ে নিয়েছিল রিয়াল। কিন্তু এবার রোনালদোর শটটি গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও ক্রসবার লেগে নিচে পড়লেও লাইন অতিক্রম করেনি। অবশ্য ৫০ মিনিটেই নিজের দ্বিতীয় গোলটি পেয়ে গেছেন রোনালদো। অ্যাপোয়েলের ডিফেন্ডার রবার্তো লাগো অযথা হাত দিয়ে বল আটকাতে গিয়ে পেনাল্টি উপহার দেন রিয়ালকে। ঠান্ডা মাথায় ব্যবধান ২-০ করেন রোনালদো।

২ মিনিট পরেই হ্যাটট্রিকও হয়ে যেত রোনালদোর। কিন্তু পেনাল্টি-বক্সে তাঁকে ফেলে দিলেও রেফারি পেনাল্টি বাঁশি বাজাননি।
৬১ মিনিটেই অবশ্য ম্যাচের সবচেয়ে সুন্দর গোলের দেখা মিলেছে। মার্সেলোর ক্রস বেলের মাথা ছুঁয়ে আসে রামোসের কাছে। গোলের উল্টোদিকে মুখ করে থাকা রামোস উপায় না দেখে বাইসাইকেল কিক নিলে বোকা বনে যান অ্যাপোয়েল গোলরক্ষক (৩-০)।

এরপরও গোলের নেশায় হন্যে হয়ে ছুটেছে রিয়াল। পুরো দলই যেন রোনালদোকে দিয়ে হ্যাটট্রিক করানোর পণ নিয়ে নেমেছিল তখন। কিন্তু কিছুতেই কিছু হয়নি। ৮৪ মিনিটে বল জালে পাঠালেও অফসাইডে বাতিল হয় রোনালদোর গোল। যোগ করা সময়ে রোনালদোর পাস থেকে করা বোর্হা মায়োরালের গোলটিও কাটা পড়েছে রোনালদো অফসাইডে থাকায়।