অন্যরকম খবর আন্তর্জাতিক

রোগীর অপারেশন তা ও আবার মিউজিকের তালে!

সংগীত বা গান পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। কেননা, সংগীতে রয়েছে মানুষকে মোহিত করার ক্ষমতা। দৈনন্দিন ব্যস্ত জীবনে একটু অবকাশ পেতে মানুষ কোনো না কোনোভাবে সংগীতের দ্বারস্থ হয়। এবার সংগীতের আরেকটি ব্যবহার দেখা গেল।

সম্প্রতি এক ব্যক্তির মস্তিষ্ক থেকে টিউমার অপসারণ করতে চিকিৎসকরা সংগীতের সহায়তা নিয়েছেন। তারা রোগীকে স্যাক্সোফোন (এক ধরনের বাদ্যযন্ত্র) বাজাতে দিয়েছেন অপারেশনের সময়।

অবশ্য এজন্য চিকিৎসক দলের প্রধান ওয়েবস্টার পিলচার দীর্ঘ ছয় মাস গবেষণা করেছেন। এ সময় তিনি ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত রোগী ড্যান ফ্যাবিও’র মস্তিষ্কের গঠনগত নানা দিক নিয়ে গবেষণা করেন। রোগী নিজেও মিউজিশয়ান। এরপর তিনি সিদ্ধান্ত নেন রোগীকে অপারেশনের সময় স্যাক্সোফোন বাজাতে দেবেন।

এই পদ্ধতি বাছাইয়ের কারণ হিসেবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ফ্যাবিও মিউজিশিয়ান। অপারেশনের কারণে তার মস্তিষ্কে মিউজিকের কর্মক্ষমতা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেজন্যই এই পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে। এছাড়া অপারেশন সফল হবে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতেই এই প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়।

অপারেশনের সময় চিকিৎসকরা অবাক হয়ে যান ফ্যাবিওর নিখুঁত মিউজিক বাজানো দেখে। তাদের ভাষায়, ‘ফ্যাবিও এমনভাবে মিউজিক বাজাচ্ছিলেন যেন তিনি পুরোপুরি সুস্থ ও স্বাভাবিক। সামান্য খুঁতও ছিল না তার মিউজিকে।’

অবশেষে সফলভাবে অপারেশন করতে সক্ষম হন চিকিৎসকরা। যদিও রোগীকে জাগিয়ে রেখে গান করানো কিংবা মিউজিক বাজানোর মধ্য দিয়ে অস্ত্রোপচারের ঘটনা এটিই প্রথম নয়, এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে এই প্রক্রিয়ায় মস্তিষ্কের মিউজিক্যাল ক্ষমতার অবস্থান নির্ধারণের ঘটনা এটিই প্রথম।