বিনোদন

‘রিয়াজ ও মিশার ছবি সিনেমা হলে প্রদর্শন করব না’

চিত্রনায়ক রিয়াজ, অভিনেতা মিশা সওদাগর ও প্রযোজক খসরুর কোনো ছবি চালাবে না প্রদর্শক সমিতির সদস্য হল মালিকরা। আজ মঙ্গলবার নতুন এই সিদ্ধান্ত নিয়ে জানিয়েছে প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। জাজের সমর্থনে প্রদর্শক সমিতির এই নেতা বিভিন্ন সময় কথা বলে আসছেন। টেলিভিশন টকশোতেও তিনি তোপের মুখে পড়েন। সর্বশেষ যৌথ প্রযোজনার নামে প্রতারণা বন্ধের দাবিতে আন্দোলনকারীদের হাতে লাঞ্ছিত হন তিনি।

এর আগে ২০১৫ সালের শুরুর দিকে বিদেশি ছবি আমদানি করার পক্ষে ছিল প্রদর্শক সমিতি। তার বিরুদ্ধে আন্দোলন করায় চিত্রনায়ক শাকিব খান, চিত্র পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান, মুশফিকুর রহমান গুলজারের ছবি না চালানোর ঘোষণা দিয়েছিল সিনেমা হল মালিক এবং বুকিং এজেন্ট সমিতি।

নওশাদ বলেন, দেশের সিনেমা হলে রিয়াজ, খলনায়ক মিশা সওদাগর ও প্রযোজক খসরুর ছবি প্রদর্শন করব না। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আগামী ২৬ জুলাই বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) এর মাধ্যমে নেওয়া হবে। তখন সারা দেশের হল মালিকদের সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া জানানো হবে।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রাঙ্গন বেশ কিছুদিন ধরেই যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র নিয়ে দুই ভাগে বিভক্ত। জাজ মাল্টিমিডিয়া সর্বশেষ ঈদে বস টু ও নবাব নামে দুটি ছবি যৌথ প্রযোজনার ছবি নীতিমালা ভঙ্গ করে নির্মাণ করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। একদিকে নিয়ম নীতি না মেনেই ছবি যৌথ প্রযোজনার নামে ওপারের ছবি করছে বলে অভিযোগ আছে জাজ মাল্টিমিডিয়ার বিরুদ্ধে। অন্যদিকে যৌথ প্রযোজনার নামে যৌথ প্রতারণার ছবি বন্ধের জন্য আন্দোলন করছে চলচ্চিত্র শিল্পী, পরিচালক সমিতিসহ ১৭টি সংগঠন।

গত রবিবার তথ্য মন্ত্রণালয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু তার বেশ কয়েকজন সচিব ও কর্মকর্তাসহ চলচ্চিত্র পরিবারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। সেখানে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যৌথ প্রযোজনার নীতিমালা সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত যৌথ প্রযোজনার ছবি নির্মাণ বন্ধ থাকবে। এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন চলচ্চিত্রাঙ্গনের মানুষরা। ধারণা করা হচ্ছে, তথ্য মন্ত্রণালয়ের ঘোষণায় অসন্তুষ্ট হয়ে নতুন সরকারি সিদ্ধান্তকে বেকায়দায় ফেলতে চাইছেন এই নেতা।