অন্যরকম খবর ট্র্যাভেল

রক ক্লাইম্বারদেরও হার মানায় এই ছাগল!

পর্বতারোহন অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষের কাছে একটি অত্যন্ত আকর্ষণীয় বিষয়। প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষ পর্বতারোহনের নেশায় ছুটে বেড়ান বিশ্বের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। সাংঘাতিক ঝুঁকি উপেক্ষা করে পাহাড়ের চুড়ায় ওঠার মজাটাই নাকি একেবারে অন্য রকম! কিন্তু সফল পর্বতারোহনের জন্য চাই উপযুক্ত প্রশিক্ষণ, একাধিক আধুনিক সরঞ্জাম এবং ট্যাঁকের জোর। কিন্তু যদি দেখেন, আপনি কষ্ট করে পাহাড়ে উঠছেন আর পাশ দিয়ে গটগট করে চলে গেল একটি ছাগল, তাহলে কেমন লাগবে? ছাগল আবার পাহাড়ে চড়ে নাকি? হ্যাঁ, এই ছাগল পাহাড়ে ওঠে, এবং অনায়াসেই। প্রতিদিন হাজার হাজার ফুট উঁচু পাহাড়ে চড়ছে, উঠছে, নামছে শুধুমাত্র নিজেদের খাবার সংগ্রহের জন্য। এরা হল- মাউন্টেন গোট বা পার্বত্য ছাগল। পৃথিবীর নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা এই মাউন্টেন গোট-এর সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেয়া যাক।1a

* প্রধানত উত্তর আমেরিকার পার্বত্য এলাকায় দেখা মেলে এই মাউন্টেন গোটের। তবে পার্বত্য হিমালয় এবং রুক্ষ আফগানিস্তানেও দেখা মেলে এদের।

* খাবারের খোঁজে এই মাউন্টেন গোট প্রতিদিন প্রায় ১৩ হাজার ফুট উঁচু পাহাড়ে অনায়াসে চড়ে যায়।

* এই মাউন্টেন গোট-এর ওজন ৪৫ কেজি থেকে ১৪০ কেজি পর্যন্ত হয়। সবচেয়ে আশ্চর্যের, এই ওজন নিয়েও খাবার সংগ্রহের জন্য হাজার হাজার ফুট উঁচুতে উঠে পড়ে এরা।

* প্রতিকূল আবহাওয়ায় টিকে থাকার জন্য এদের শরীর পুরু পশমে ঢাকা থাকে। মাইনাস ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা বা ১৬০ কিমি/ঘণ্টা গতিবেগের ঝোড়ো হাওয়ার ধাক্কা সামলেও টিকে থাকতে সক্ষম মাউন্টেন গোট।

* একটি পূর্ণ বয়স্ক মাউন্টেন গোট থেকে বছরে প্রায় ৪০ কেজি উল পাওয়া যায়। কিন্তু এরা মোটেই পোষ মানে না। তাই উলের জন্য বাণিজ্যিক ভাবে এদের ব্যবহারও করা যায় না।

* এই মাউন্টেন গোট সাধারণত ১২ থেকে ১৫ বছর বাঁচে। এদের বেশির ভাগের মৃত্যু হয় দুর্ঘটনায়। কিন্তু চিড়িয়াখানায় বা বিশেষ সংরক্ষিত প্রকল্পে এদের আয়ু ১৫ থেকে ২০ বছর।

* সদ্যোজাত মাউন্টেন গোট-এর ওজনও প্রায় ৩ কেজি। একটি মাউন্টেন গোট জন্মানোর ৪-৫ ঘণ্টার মধ্যেই পাহাড়ে চড়ার চেষ্টা শুরু করে দেয়।

* ৩০ মাস বয়সে পৌঁছালে একটি মাউন্টেন গোট প্রজননে সক্ষম হয়। অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর এদের প্রজননকাল। প্রজননকাল পেরোলেই পুরুষ ও মেয়ে মাউন্টেন গোট আলাদা আলাদা দলে বিভক্ত হয়ে যায়।

ভিডিওঃ বাজ পড়লেও যেভাবে বেঁচে গেছেন এই নারী (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment