Advertisements
বিনোদন

যে টাকা দিয়ে ‘মোটিভেশন’ বয়ান কিনবেন, সে টাকায় রেষ্টুরেন্টে …..

ইদানিং কালে ঢাকা শহরের নতুন ট্রেন্ড – ‘মোটিভেশনাল স্পিকার’।এরা মোটিভেশনের নামে ব্যবসা শুরু করতেছে। ছেলেমেয়ে পড়ালেখা করবে না , বছরের পর বছর ফেল করবে, দিন শেষে বলবে মোটিভেশন দরকার , এর সুযোগে কিছু লোকেরা এই সুযোগে লাখ টাকা হাতায় নেয়। আগে তো এত মোটিভেশনাল স্পিকার ছিল না , মানুষ কি লাইফে সাক্সেস্ফুল হয় নাই ? হঠাত কি উল্টায় গেলো যে এখন প্রতি অনুষ্ঠানে লাখ লাখ টাকা খরচ করে ‘স্পিকার’ আনা লাগবে মোটিভেশনের জন্য ?

গ্রাম থেকে রিক্সাওয়ালা-ভ্যান ওয়ালার সন্তান রা ঢাকা ইউনিভার্সিটি মেডিকেল বুয়েট কাপায় দিতেসে , তাদের তো মোটিভেশন লাগে না সোলাইমান সুখনের । তাইলে ? এদের ব্যবসা বাড়ানোর জন্য আজকালকের ছেলে পেলেরাই দায়ী ।

মোটিভেশন খুব দরকার হইলে বাপ মায়ের কাছে সব খুইলা বইলা ৫ টা চটকানা খাইয়া লাইনে আসেন , লাইফে কিছু করতে পারবেন। সুখন’রা শুধু সুন্দর সুন্দর কথা বলে টাকা নিবে । বিনিময়ে আপনি পাবেন ঘোড়ার ডিম ।

যে টাকা দিয়া মোটিভেশনের বয়ান কিনবেন, সেই টাকায় রেস্টুরেন্টে গিয়া পেট ভরে খেলে কাজে দিবে।

এইসব মুখোশধারী মোটিভেশনাল স্পিকারদের মুখোশ উন্মোচনের জন্য এগিয়ে আসছে ‘বন্ধু তুই নেক্সট’ খ্যাত

নিচের ভিডিও (ট্রেলার) দেখে আসতে পারেন। সম্পূর্ন ভিডিও খুব শীঘ্রই আসছে।

ভিডিও ক্লিপটি দেখতে ক্লিক করুন 

Advertisements