প্রবাসী খবর

যুক্তরাজ্যে যৌন নিপীড়নে যুক্তরাজ্যে দণ্ডিত ইমাম পালিয়ে বাংলাদেশে

rশিশুদের যৌন নিপীড়নের অপরাধে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশী এক ইমামের সাড়ে ১১ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে ৫ হাজার ৫৯০ পাউন্ড জরিমানা এবং শিশুদের নিয়ে কাজ করার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

প্রায় তিন দশক আগের ওই ঘটনায় ৫৮ বছর বয়সী হিফিজ রহমানের অনুপস্থিতিতেই বৃহস্পতিবার বার্মিংহামের উলভারহ্যাম্পটন ক্রাউন কোর্ট তাকে সাজা দেয়।

১৯৮৬ সালের মার্চ থেকে ১৯৮৭ সালের অগাস্টের মধ্যে ওয়েস্ট মিডল্যান্ডের এক মসজিদে শিশুদের যৌন নির্যাতনের পাঁচটি ঘটনায় আদালত হিফিজকে দোষী সাব্যস্ত করেছে।

তবে গত মাসে একই আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করার পর দিনই তিনি বার্মিংহাম এয়ারপোর্টে বাংলাদেশের একটি ফ্লাইটে পালিয়ে যান।

নেদার্টনের বলার্ড রোডের বাসিন্দা সাত সন্তানের জনক এই ইমাম নিজেকে অসুস্থ দাবি করে বিচার চলার বেশিরভাগ সময় আদালতে হাজির হননি। এটাকে প্রতারণা বলে মন্তব্য করেছেন বিচারক নিকোলাস কার্টরাইট।

রায়ে বিচারক বলেন, ‘তিনি (ইমাম) নিজের ওপর স্থাপিত মানুষের আস্থার মারাত্মক লংঘন করেছেন।’

ঘটনার সময় সাত বছর বয়সী ভুক্তভোগী এক নারী আদালতকে বলেন, ক্রেডলি হিথের ওই মসজিদের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা তাকে ‘ঈশ্বরের’ মতো ভক্তি করতো।

হিফিজের ব্রিটিশ পাসপোর্ট আদালতের কাছে আত্মসমর্পণ করা হলেও তার কাছে বাংলাদেশী পাসপোর্ট থাকার কথা তার আইনজীবীরা জানতো না। ওই পাসপোর্ট ব্যবহার করেই পালিয়ে যান ইমাম।

দণ্ডিত ইমামের পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় ভুক্তভোগীরা হতাশ ব্যক্ত করেছেন।

তবে ওয়েস্ট মিডল্যান্ডের পুলিশ বলছে, ওই ইমামকে ফেরানোর বিষয়ে তারা দ্রুত পদক্ষেপ নেবে।

Add Comment

Click here to post a comment