মতামত/বিশেষ লেখা/সাক্ষাৎকার

‘মালাউন’ শব্দটি বিএনপি বললে কী অবস্থা হতো, প্রশ্ন আসিফ নজরুলের

1aহিন্দু সম্প্রদায়কে ‘মালাউন’ বলে অশালীন মন্তব্য করায় কঠোর সমালোচনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. আসিফ নজরুল। তিনি বলেছেন, ‘মালাউন’ শব্দটি যদি বিএনপির কোনো নেতা বলতো, তাহলে কি অবস্থা হতো দেশে?’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুবাড়িতে হামলার ঘটনার পর মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হক হিন্দু সম্প্রদায়কে ‘মালাউন’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। এরপর শনিবার আসিফ নজরুল তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে মালাউন শব্দটিকে অশালীন বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘বিএনপির কোনো নেতা ‘মালাউন’ শব্দটি বললে দেশে তুলকালাম কাণ্ড হয়ে যেত। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে সাংস্কৃতিক ও মানবাধিকার সংগঠন, গণমাধ্যম ও বুদ্ধিজীবীরা তুলকালাম কাণ্ড করে ফেলতেন সারাদেশে!’

‘মালাউন’ শব্দটি আওয়ামী লীগের মন্ত্রী বলায় সবাই চুপ হয়ে আছে বলে মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষক। তিনি বলেন, ‘হিন্দুদের ‘মালাউন’ বলার ঘৃণ্য কাজটি আওয়ামী লীগের মন্ত্রী করেছে বলে তাদের প্রায় সবাই এখনো চুপ। অন্যায়ের প্রতিবাদের কথা উল্লেখ করে ড.আসিফ নজরুল বলেন, ‘এরা বোঝে না, অন্যায় যে আমলে হোক বা যেই করুক তার প্রতিবাদ করতে হয় একইভাবে। অপরাধীর জার্সি দেখে নয়।’

প্রসঙ্গত, গত ২৯ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মুসলমানদের পবিত্রস্থান পবিত্র কাবা শরীফ নিয়ে ব্যাঙ্গ চিত্র করে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের একজন একটি পোস্ট দেন। অভিযোগ আছে, ফেসবুকের ওই ঘটনার পর ৩০ অক্টোবর স্থানীয় কলেজ মোড় এবং আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে দুটি পৃথক বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। সমাবেশ থেকেই শত শত মানুষ হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির ও ঘরবাড়িতে হামলা চালায়। পরবর্তিতে ৩রা নভেম্বর বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে আবারো ওই এলাকার হিন্দুদের অন্তত ছয়টি বাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে।

ভিডিওঃ বাজ পড়লেও যেভাবে বেঁচে গেছেন এই নারী (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment