slider আন্তর্জাতিক

ভারতজুড়ে আবারও ‘কোকাকোলা-পেপসিতে এইচআইভি রক্ত’ আতঙ্ক

ভারতজুড়ে আবারও ‘কোকাকোলা ও পেপসিতে এইচআইভি রক্ত সংমিশ্রণ’ করা হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। ইংরেজি, হিন্দি, বাংলা, উর্দুসহ বিভিন্ন ভাষায় এ ধরনের ম্যাসেজ ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার, ই-মেইল, ভাইবার, হোয়াটসঅ্যাপসহ অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ব্যাপক চালাচালি হচ্ছে। ইউটিউবেও এর পক্ষে অনেক ভিডিও দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, ২০০৪, ২০০৭-২০০৮, ২০১১, ২০১৩-২০১৪ এবং সর্বশেষ ২০১৭ সালে এ ধরনের বার্তা ভারত, বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটানসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতে ছড়িয়ে পড়েছে। এর আগে অন্যান্য সাধারণ পানীয় নিয়েও একই ধরনের গুজব ছাড়ানো হয়েছিল। তবে ২০১১ সালের জুলাই মাস থেকে পেপসি ও কোকাকোলাকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি গুজব ছাড়ানো হয়েছে।

ভারতের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ‘এনডিটিভি’ এ ধরনের একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে বলে গুজবে জানানো হলেও তাদের ওয়েবসাইট ঘেঁটে এ বিষয়ে কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি। এমনকি তাদের নাম ব্যবহার করে গত ১৩ বছর ধরে গুজব প্রকাশ করা হলেও এর পক্ষে বা বিপক্ষে কোনো সংবাদ প্রকাশ করেনি গণমাধ্যমটি।

ভারতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোকাকোলা-পেপসি নিয়ে গুজব ছাড়ানো হলেও অনেকেই এসব গুজবের বিরুদ্ধে নানান ধরনের সচেতেনতা পোস্ট প্রকাশ করছেন। কয়েকটি গণমাধ্যমকেও এইচআইভি কি ও কেন হয় এবং গুজবে কান না দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছে। তবে সচেতনতা বৃদ্ধির কাজ নানানভাবে করা হলেও দেশটিতে এই নিয়ে মানুষ এখনও আতংকে রয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে।

বিভিন্নভাবে যেসব ম্যাসেজ আগেও দেওয়া হয়েছিল তার চিত্র দেখিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো। ছবি: সংগৃহীত। 

বাংলা ম্যাসেজে যা লেখা হয়েছে

ভারতের দিল্লি পুলিশের এই ম্যাসেজটা পুরো দুনিয়ার জন্য দেয়া হয়েছে! আগামী কয়েক সপ্তাহ কোকাকোলা বা পেপসি অথবা পানীয় জাতীয় কোন জিনিস যা বাজারে পাওয়া যায় সেই সব জিনিস খাবেন না! কারণ এতে কেউ এইচআইভি ব্ল্যাড মিশিয়ে দিয়েছে এটা ভারতের এনডি টিভিতে দেখানো হয়েছিল! দয়া করে সব বন্ধুদের শেয়ার করে একজন দায়িত্ববান নাগরিকের ভূমিকা পালন করুন। আমেরিকান ডাক্তাররা মানুষের শরীরে এক নতুন ক্যান্সার খুঁজে পেয়েছেন যার কারণ সিল্ভার নিট্রো অক্সসাইড। যখন আপনি মোবাইল কার্ড নখ দিয়ে ঘষে তুলেন তখন এটি আপনার শরীরে স্কিন ক্যান্সারের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। বাম কানে ফোনে কথা বলবেন, ঠান্ডা পানি দিয়ে ঔষধ খাবেন না। রাতের চেয়ে দিনে পানি বেশি পান করবেন। ঘুমানোর উত্তম সময় হলো রাত ১০টা হতে ভোর ৪টা। চার্জের বাতি যখন শেষ দাগে তখন কোনো কল ধরোনা এই সময় রেডিয়েশন অন্যান্য সময়ের চেয়ে ১০০০ গুণ বেশি থাকে। আমেরিকান ক্যামিকাল রিসার্চ সেন্টার: প্লাস্টিকের কাপে চা খাবেন না এবং পলেথিন পেপারে মোড়ানো কোনো ফল খাবেন না কারণ এর দ্বারা ৫২ ধরনের ক্যান্সার হতে পারে। তাই এই সুন্দর একটি এসএমএস ১০০ খারাপ এসএমএস থেকে উত্তম। দয়াকরে এটি পাঠান যাদের আপনি যত্ন করেন।

ইংরেজি ম্যাসেজে যা লেখা হয়েছে

Important message….There’s news from the police. Its an urgent message for all. For next few days don’t drink any product from pepsi company’s like pepsi, tropicana juice, slice, 7up etc. A worker from the company has added his blood contaminated with AIDS.. Watch MDTV. please forward this to everyone on your list. please 4ward this 2 every 1 u care about…..please spread!

URGENT!!!!!! ALERT!!! Please DO NOT DRINK any PEPSI SODA, a worker from the company has put blood CONTAMINATED with AIDS inside the BOTTELS!!! Please forward this!! No jokes NOT taking any chances…. Check the news

এইডস থেকে কীভাবে ভাইরাস ছড়ায় না সে বিষয়েও ভারতের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাল্টা পোস্ট দেখতে পাওয়া গেছে। ছবি: ফেসবুক। 

হিন্দি ম্যাসেজে যা লেখা হয়েছে

दिल्ली पुलिस कि तरफ से ये मेसेज पूरी इंडिया को है।आगे के कुछ हफ़्तों के लिए कृपया Coca cola या Pepsi कोई भी पिने वाली चीज़ जो मार्केट में मिल रही है उसे न पिये, क्यूंकि इसमें वहाँ के किसी वर्कर ने इसमें अपना HIV का ब्लड मिला दिया है जो कि कल NDTV पर दिखाया गया है। कृपया इसे अपने सभी फ्रेंड्स और रिलेटिव्स को फॉरवर्ड करें जिससे ज्यादा से ज्यादा लोगों को इसकी जानकारी हो। प्लीज देखते ही शेयर करेৎ