অন্যরকম খবর

বিয়ের আসরে বড় ভাইকে ঠেলে সরিয়ে নিজেই বিয়ে করে নিলেন কনেকে!

বিরল হলেও এমন ঘটনা ঘটে। যখন সিনেমার কল্পনাকেও হার মানিয়ে দেয় ঘোর বাস্তব। এমনই এক বাস্তবের সাক্ষী হলেন ভারতের ভেল্লোরের তিরুপাত্তুর এলাকার বাসিন্দারা। যখন বিয়ের একেবারে শেষ মুহূর্তে নাটকীয় যবনিকা পতন হল পাত্রের ছোট ভাইয়ের কীর্তিতে। কী এমন করলেন তিনি? বড় ভাইকে ঠেলে সরিয়ে নিজেই বিয়ে করে নিলেন কনেকে।

কিন্তু কেন এমনটা করলেন ওই যুবক? প্রশ্নের উত্তরে যা জানা গেল তাতে হতবাক উপস্থিত আত্মীয়-পরিজনরা। কারণ এতে সম্মতি ছিল পাত্রীরও। পাত্রের ছোট ভাইকেই ভালবাসেন বলে জানান ২০ বছরের ওই পাত্রী। আজ থেকে নয়, তাদের এই প্রেম চলছে প্রথম দেখার দিন থেকেই। সেদিন বড় ভাইয়ের জন্যই পাত্রী দেখতে গিয়েছিলেন ওই যুবক। কিন্তু প্রথম দেখাতেই পাত্রীকে তারই পছন্দ হয়ে যায়। যুবতীরও ‘লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট’ ছিল। তখন থেকেই চুপি চুপি প্রেমপর্ব চালিয়ে যাচ্ছেন দু’জনে। যা কেউ এতদিন আঁচ করতে পারেননি।

কিন্তু বিয়ের দিনই সমস্ত তথ্য ফাঁস হল। বিয়ের শেষের দিকে দক্ষিণী রীতি অনুযায়ী পুরোহিত বড়ভাইকে যখন কনের গলায় পবিত্র সুতো অর্থাৎ তালি বাঁধতে বলে। আচমকা ভাইকে ঠেলে সরিয়ে নিজের পকেট থেকে অন্য একটি তালি বের করে পাত্রীর গলায় পরিয়ে দেয় ছোটভাই। প্রথমে হকচকিয়ে গেলেও পরে আত্মীয়-পরিজনরা কনেকে ওই সুতো খুলে ফেলতে বলেন। সকলকে অবাক করে কনে জানান, এই কাজ তার সম্মতিতেই হয়েছে তাই ওই সুতো তিনি খুলবেন না। তখনই পুরো সত্য সকলের সামনে আসে।

ঘটনার পরই মণ্ডপ ছেড়ে চলে যায় বড়ভাই। তারপর থেকেই আর কোনও খোঁজ মেলেনি তার। ছোটভাইকে ব্যাপক মারধর করা হয়েছে। যুবতীর গলা থেকেও জোর করে তালি খুলে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু নিজেদের সিদ্ধান্তে এখনও অনড় দু’জনেই।