Advertisements
slider আন্তর্জাতিক

বিশ্ব ঐতিহ্যের মর্যাদা পেলো ফিলিস্তিনের হেবরন

‘ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট’ বা বিশ্ব ঐতিহ্যের মর্যাদা পেলো ফিলিস্তিনের হেবরনের পুরনো নগরকেন্দ্র। ইউনেসকো এ ঘোষণা দিয়েছে। একইসঙ্গে এই জায়গাটিকে বিপন্ন ঐতিহ্যের একটি তালিকায়ও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

পোল্যান্ডের ক্র্যাকো শহরে ইউনেসকো’র ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটি বৈঠকে সংস্থাটির সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রতিনিধি এ সিদ্ধান্তে উপনীত হন। তবে এমন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ইসরায়েল।

হেবরন শহরের ‘টম্ব অব দ্য প্যাট্যিয়ার্ক’ বা ‘আদি পিতাদের সমাধি’ বিশ্বের তিনটি প্রধান একেশ্বরবাদী ধর্ম- ইসলাম, খ্রিস্টান ও ইহুদী ধর্মে বিশ্বাসীদের কাছে একটি পবিত্র স্থান। এটি হজরত ইব্রাহিম আলাইহিস সালাম, হজরত ঈসা আলাইহিস সালাম এবং জ্যাকবের সমাধিস্থল হিসেবে পরিচিত। ইহুদিদের কাছে এটি দ্বিতীয় পবিত্রতম স্থান। আর ইসলামের চতুর্থ পবিত্রতম স্থান।

ফিলিস্তিনি এবং ইহুদিদের মধ্যে এই জায়গাটি নিয়ে অতীতে বহুবার সংঘাত হয়েছে। কয়েকশ ইহুদি এর কাছে গিয়ে বসতি গেঁড়েছে। অন্যদিকে হেবরনের পুরনো শহরে প্রায় দুই লাখ ফিলিস্তিনির বসবাস।

ফিলিস্তিনিদের আশঙ্কা, ইসরায়েল সেখানে যেসব তৎপরতা চালাচ্ছে, তাতে এটির ঐতিহ্য বিপন্ন হতে পারে।

ইসরায়েল হেবরন শহরে আন্তর্জাতিক আইন এবং রীতিনীতি লংঘন করে বিভিন্ন ঐতিহ্য ধ্বংস করছে, বাড়িঘরে হামলা চালাচ্ছে। তারা এই শহরের ইসলামি ঐতিহ্য ধ্বংস করতে চাইছে।

টম্ব অব দ্য প্যাট্রিয়ার্ক এখন ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় সেখানকার পরিস্থিতি তারা প্রতিবছর পর্যালোচনা করবে এবং এটি সংরক্ষণে বিভিন্ন উদ্যোগ নেবে।

ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, আজ ফিলিস্তিন এবং সারা বিশ্ব হেবরনকে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে উদযাপন করছে। এটি দেশ, কাল, ধর্ম, রাজনীতি, আদর্শের এক মূল্যবান সম্পদ। তবে ইসরায়েলি শিক্ষামন্ত্রী নাফটালি বেনেট অভিযোগ করেছেন, ইউনেসকো’কে তার দেশের বিরুদ্ধে একটি রাজনৈতিক অস্ত্র হিসেবে কাজে লাগানো হচ্ছে। তিনি ইউনেসকো’র এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। সূত্র: বিবিসি।

Advertisements