Advertisements
খেলা-ধুলা

‘বিরাট কোহলি নিজেকে বিক্রি করেছে’

সোশ্যাল মিডিয়ায় মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করেন। আর সে কারণে জড়িয়ে পড়েন বিতর্কেও। রবিবার পাকিস্তানের কাছে হেরেছে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারত, আর তিনি চুপ করে থাকবেন? এটা কখনই সম্ভব নয়। তাই ম্যাচের পরেই কোহলিসহ টিম ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে টুইট করেন স্বঘোষিত ফিল্ম সমালোচক কমল আর খান। এতে তিনি দাবি করেন, কোহলি এবং ভারতীয় দলের বাকি খেলোয়াড়রা টাকা খেয়েছেন। তাদের অবিলম্বে নির্বাসিত করা হোক। এমনকী তাদের ‘দেশদ্রোহী’ আখ্যা দেন তিনি। শুধু তাই নয়, কোহলিকে জেলে পাঠানোর দাবি তোলেন তিনি। যদিও এরপরে অনেকেই কমল আর খানের এই বক্তব্যের বিরোধিতা করেন। এমনকী কোহলিদের সমর্থনে এগিয়ে আসেন পাকিস্তানি সমর্থকরাও।

রবিবার ওভালের ফাইনালে ১৮০ রানে ভারতের হারের পরেই বেশ কয়েকটি টুইট করেন কমল আর খান। লেখেন, ‘ভারতীয় দলের সমস্ত খেলোয়াড়কে নির্বাসিত করুক কেন্দ্র। ওঁরা নিজেদের সঙ্গে সঙ্গে দেশের সম্মানকেও বিক্রি করেছে। কোহলিকে জেলে পাঠানো উচিত। কারণ সে ১৩০ কোটি ভারতবাসীর সম্মান পাকিস্তানের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। বিসিসিআই ও দেশবাসীকে বোকা বানিয়ে ম্যাচ গড়াপেটা করছে এবং কোটি কোটি টাকা কামাচ্ছে। ভারতীয় খেলোয়াড়রা লন্ডন থেকে ফিরলেই লোকেদের উচিত পচা ডিম, টমেটো ছুড়ে মারা। কারণ ওঁরাই আসল দেশদ্রোহী। কোহলি, যুবরাজ, ধোনির মতো যারা ম্যাচ গড়াপেটা করে, তাদের এখনই অবসর নিয়ে নেওয়া উচিত। ‘

কমল আর খান আরও লেখেন, ‘আমি ধোনি, ধাওয়ান, যুবরাজ, কোহলিদের ‘দেশদ্রোহী ২’ সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ দিতে চাই। কারণ এরা সহজেই ১৩০ কোটি ভারতীয়কে বোকা বানাতে পারে। পাণ্ডিয়া রান করতে পারলে বড় বড় ব্যাটসম্যানরা কেন পারল না? আসলে ওঁরা ম্যাচটা জিততেই চায়নি। পাণ্ডিয়া ম্যাচ জিততে চেয়েছিল। ম্যাচ গড়াপেটার ব্যাপারে সে হয়ত কিছু জানত না। কিন্তু ম্যাচ গড়াপেটায় শামিল থাকা জাদেজা তাকে রান আউট করে দেয়। ভারতের সেরা ব্যাটসম্যানরা কখনই এত খারাপ খেলতে পারে না। যদিও ভারতীয় দল নিজেদের বিক্রি করেছে, তবুও পাকিস্তান দলকে অভিনন্দন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতার জন্য।

Advertisements